1. dailyfulki04@gmail.com : dfulki :
  2. fulki04@yahoo.com : Daily Fulki : Daily Fulki
বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০২:৩৮ অপরাহ্ন
সর্বশেষ খবর
আশুলিয়ায় চিকিৎসকের বাসায় প্রেমিকার আত্মহত্যা সাভারে শেখ পরশের সুস্থতা কামনায় যুবলীগ নেতার দোয়া মাহফিল অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে সাগরে ট্রলারডুবি, সাঁতরে সৈকতে ফিরলেন ৩১ রোহিঙ্গা আশুলিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় ওয়ালটন শ্রমিকের মৃত্যু বাংলাদেশে গ্রহণযোগ্য অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন জরুরি : সাভারে ব্রিটিশ হাইকমিশনার সাভারে চাঁদার দাবিতে হাত-পা বেঁধে মারধর পঞ্চগড়ে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে হত্যা, সাভারে গ্রেফতার ধামরাইয়ে পূজা মন্ডপে নিরাপত্তায় আনসারদের খোঁজ রাখেন না কেউ সিংগাইরে রাইস মিল মেকানিক্সকে তুলে নিলো যুবলীগ নেতা, মিলছে না হদিস সাভারে হলমার্ক গ্রুপের ভেতর নিরাপত্তা প্রহরী খুন, হত্যাকান্ডটি রহস্যময়

আশুলিয়ায় আ. লীগ নেতা মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে সাবেক স্ত্রীর ধর্ষণ মামলা

  • আপডেট : সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৮৮ বার দেখা হয়েছে

আশুলিয়া প্রতিনিধি : আশুলিয়ায় এক আওয়ামী লীগ নেতা মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন তার দ্বিতীয় স্ত্রী (২৪)। তালাকের তথ্য গোপন রেখে দীর্ঘ প্রায় ৫ মাস শারীরিক সম্পর্ক চালিয়ে যাওয়ায় তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করা হয়েছে।

রবিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাত ৯ টারদিকে আশুলিয়া থানায় এ মামলার তথ্য নিশ্চিত করে। এর আগে ১৭ এপ্রিল থেকে ৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ধারাবাহিক ভাবে ধর্ষণের অভিযোগ এনেছেন তার এই সাবেক স্ত্রী। সর্বশেষ ৩ সেপ্টেম্বর রাতেও ভুক্তভোগীকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা যায়, গত ১৭ এপ্রিল ভুক্তভোগীকে তালাক প্রদান করলেও তালাকের নোটিশ গোপন করে রেখেছিলেন ওই আওয়ামী লীগ নেতা।

অভিযুক্ত মোয়াজ্জেম হোসেন (৫৫) ঢাকা জেলার সাভার উপজেলার পাথালিয়া ইউনিয়নের নয়ারহাট এলাকার চাকল গ্রামের মৃত মোজাম্মেল হকের ছেলে। তিনি পাথালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীর বিরুদ্ধে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিযোগিতা করায় তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ২০১৮ সালে তিন লাখ টাকা দেনমোহরে নয়ারহাট এলাকার চাকল গ্রামের এক নারীকে (২৪) বিয়ে করেন মোয়াজ্জেম হোসেন। বিয়ের পর ওই নারী নিজের বাড়িতে থেকেই মোয়াজ্জেমের সাথে ঘর সংসার করতেন। গত ১৭ এপ্রিল দ্বিতীয় স্ত্রীকে তালাক দেন মোয়াজ্জেম। তালাকের বিষয়টি গোপন রেখে ভুক্তভোগীর সাথে ৫ মাস শারিরীক সম্পর্ক বজায় রাখেন মোয়াজ্জেম হোসেন। ৬ সেপ্টেম্বর মোয়াজ্জেমের বাড়িতে ভরণ-পোষণের খরচ চাইতে যায় ভুক্তভোগী।

তখন ভুক্তভোগীকে তালাকের কাগজ হাতে ধরিয়ে দেন মোয়াজ্জেম। পরে ওই নারী আশুলিয়া থানায় মামলা করতে আসলে থানা থেকে আদালতে যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়। এরপর ৮ সেপ্টেম্বর আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করেন ওই ভুক্তভোগী। পিটিশন মামলা নং-৩৬৭।

এ ব্যাপারে মোয়াজ্জেম হোসেনের মুঠো ফোনে একাধিকবার ফোন দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি। সর্বশেষ রাত ৯ টা বাজেও চেষ্টা করে দেখা যায় তার ফোনটি বন্ধ।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আশুলিয়া থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুস সবুর বলেন, আমি এখনো মামলার কাগজ হাতে পাইনি। কাগজ পাওয়ার আগে কিছু বলা সম্ভব হচ্ছে না।

উল্লেখ্য, গত ইউপি নির্বাচনে তিনি নৌকার বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র ভাবে নির্বাচনে অংশ নেন। পরে তাকে বহিঃষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয় স্থানীয় থানা আওয়ামী লীগ। তবে এরপরেও স্থানীয় ভাবে তাকে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করতেই দেখা গেছে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

সত্যের সন্ধানে নির্ভীক কিছু তরুণ সংবাদকর্মী নিয়ে আমাদের পথচলা

তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন ডিএফপি’র মিডিয়া তালিকাভুক্ত ঢাকা জেলার একমাত্র স্থানীয় পত্রিকা