1. dailyfulki04@gmail.com : dfulki :
  2. fulki04@yahoo.com : Daily Fulki : Daily Fulki
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৭:৩৭ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ খবর
সিংগাইরে গণডাকাতি মামলার ৭ আসামি গ্রেফতার, অস্ত্রসহ লুন্ঠিত মালামাল উদ্ধার বিদেশিদের কাছে সরকারের উন্নয়ন ও বিএনপি’র অপশাসনের চিত্র তুলে ধরুন: প্রধানমন্ত্রী শাকিব-বুবলীর বিচ্ছেদও হয়েছে? মন্দির-মণ্ডপে আ. লীগ কর্মীদের পাহারা বসানোর নির্দেশ কাদেরের নভেম্বরে হচ্ছে না ডিসি সম্মেলন বিএনপি হাঁটুভাঙা নয়, আ. লীগেরই কোমর ভেঙেছে: ফখরুল গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন শুরু ১৭ অক্টোবর পিস্তল ঠেকিয়ে দুবাইফেরত ব্যক্তির সোনা ছিনতাইয়ে দুই পুলিশ হাতিয়ায় দুই জলদস্যু বাহিনীর গোলাগুলিতে নিহত ৩ ধামরাইয়ে মাদক বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে একট্টা এলাকাবাসী, ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেপ্তারের দাবি

ধামরাইয়ে ইসলাম ধর্মগ্রহণ করে বিবাহ, বিপাকে তরুণ

  • আপডেট : রবিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ১৪৯ বার দেখা হয়েছে

ধামরাই প্রতিনিধি : ধামরাই পৌরসভায় গোপনগর লাকুরিয়া পাড়ার আনন্দ দাসের ছেলে শিশির দাস (২২)। গত ১৭ আগস্ট ইসলাম ধর্মগ্রহণ করে মো. শিশির ইসলাম নাম ধারণ করে একই পৌরসভার গোয়ারীপাড়ার মিলন মিয়ার মেয়েকে বিবাহ করেন। তবে ইসলাম ধর্মগ্রহণ করে বিবাহ করায় এখন বিপাকে পড়েছেন মো. শিশির ইসলাম।

বিবাহের পর গত ২৯ আগস্ট পর্যন্ত স্ত্রীর সঙ্গে অবস্থানের পর গত ৩০ আগস্ট তাকে জোর করে নিয়ে যায় পরিবার। এরপর ১৭ দিন আটক রাখার পর আজ রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর) তাকে ধামরাই আমলি আদালতে স্ত্রী ও স্ত্রীর পরিবারের বিরুদ্ধে জোর করে ধর্মান্তরিক করে বিবাহ করার অভিযোগে মামলা করার জন্য নিয়ে আসা হয় আদালতে।

রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর) ঢাকার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শেখ মুজাহিদু ইসলামের আদালতে এ মামলা আবেদন করেন। বিচারক বাদীর (শিশির) জবানবন্দি গ্রহণের সময় শিশির বলেন, ‘আমার পরিবার আমাকে জোর করে স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করতে নিয়ে এসেছে। আমি আসলে স্বেচ্ছায় বিবাহ করেছি। আমি মামলা করব না। আদালতের বাইরে আমার পরিবারের লোকজন আছে, বের হলেই তারা আমাকে নিয়ে আবার আটকে রাখবে।’

তখন বিচারক মামলাটি গ্রহণ না করে ফিরিয়ে দেন এবং বাদী শিশিরকে এজলাসে প্রায় ১ ঘণ্টা বসিয়ে রাখেন। পরে বিষয়টি জানতে পেরে সাংবাদিকরা গেলে শিশির আদালত কক্ষ থেকে বেরিয়ে আসেন এবং সাংবাদিকদের কাছে ঘটনার বর্ণনা দেন।
এ বিষয়ে শিশিরের আইনজীবী হুমায়ুন কবির জানান, বিবাহের পর শিশির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তার পরিবারের হুমকির বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছেন। এরপর গত ৩০ আগস্ট তার পরিবারর তাকে জোর করে নিয়ে আটক রাখার পর গত ১৫ আগস্ট শিশিরের শাশুড়ি ধামরাই আমলি আদালতে একটি মামলা করেছেন। যা তদন্তাধীন। কিন্তু ছেলের পরিবার অর্থিকভাবে ক্ষমতাবান হওয়ায় মেয়ের পরিবার থানা পুলিশের কোনো সহায়তা পাচ্ছেন না।

শিশিরের শাশুড়ি হেনা আক্তার জানান, ছেলের পরিবারের ভয়ে আমরা পালিয়ে বেড়াচ্ছি। যেকোনো সময় আমাদের বাড়িতে তারা হামলা করতে পারে।

ভুক্তভোগী শিশির জানান, দুই বছর সম্পর্কের পর স্বেচ্ছায় আমি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছি। স্বেচ্ছায় বিবাহ করেছি। আমি প্রাপ্তবয়স্ক যেকোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার ক্ষমতা আমার আছে। আমি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে আমার মতো করে বেঁচে থাকতে সহযোগী চাই।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

সত্যের সন্ধানে নির্ভীক কিছু তরুণ সংবাদকর্মী নিয়ে আমাদের পথচলা

তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন ডিএফপি’র মিডিয়া তালিকাভুক্ত ঢাকা জেলার একমাত্র স্থানীয় পত্রিকা