1. dailyfulki04@gmail.com : dfulki :
  2. fulki04@yahoo.com : Daily Fulki : Daily Fulki
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৬:৫০ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ খবর
সিংগাইরে গণডাকাতি মামলার ৭ আসামি গ্রেফতার, অস্ত্রসহ লুন্ঠিত মালামাল উদ্ধার বিদেশিদের কাছে সরকারের উন্নয়ন ও বিএনপি’র অপশাসনের চিত্র তুলে ধরুন: প্রধানমন্ত্রী শাকিব-বুবলীর বিচ্ছেদও হয়েছে? মন্দির-মণ্ডপে আ. লীগ কর্মীদের পাহারা বসানোর নির্দেশ কাদেরের নভেম্বরে হচ্ছে না ডিসি সম্মেলন বিএনপি হাঁটুভাঙা নয়, আ. লীগেরই কোমর ভেঙেছে: ফখরুল গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন শুরু ১৭ অক্টোবর পিস্তল ঠেকিয়ে দুবাইফেরত ব্যক্তির সোনা ছিনতাইয়ে দুই পুলিশ হাতিয়ায় দুই জলদস্যু বাহিনীর গোলাগুলিতে নিহত ৩ ধামরাইয়ে মাদক বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে একট্টা এলাকাবাসী, ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেপ্তারের দাবি

ঢাকা জেলা পরিষদের বিপুল ব্যয়ের ২০ তলা ভবনটি খালি পড়ে আছে, নথি গায়েব

  • আপডেট : সোমবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৫৫ বার দেখা হয়েছে

ঢাকা জেলা পরিষদের বিপুল ব্যয়ের ২০ তলা ভবনটি খালি পড়ে আছে, নথি গায়েব
স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর পুরান ঢাকার জনসন রোডের মোড়ে গেলে দেখা যাবে ২০ তলা একটি ভবন। ওই এলাকায় এর চেয়ে বেশি উচ্চতার আর কোনো ভবন নেই। তাই চোখ এড়ানোর সুযোগ নেই। এটাও চোখে পড়বে যে ভবনটি পুরোপুরি খালি। এক বছর, দুই বছর নয়, ছয় বছর ধরে এভাবে পড়ে আছে। ঢাকা জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক ও সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মিসেস হাসিনা দৌলার সময়ে এ ভবনটি নির্মাণ করা হয়েছিলো।

‘টাওয়ার ভবন’ নামে এই ভবন নির্মাণ করেছে ঢাকা জেলা পরিষদ। কথা ছিল, ভবনের দোকান ও জায়গা (স্পেস) ভাড়া দিয়ে বিপুল আয় হবে। সেই টাকা দিয়ে ঢাকা জেলার উন্নয়ন কাজ করা হবে। এই ‘সুফল’ দেখিয়ে ১৬৩ কোটি টাকার প্রকল্প নেওয়া হয়েছিল। এখন আয় তো দূরে থাক, ভবনটি বোঝায় পরিণত হয়েছে।

ঢাকা জেলা পরিষদ ভবনটি নির্মাণে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) অনুমোদন নেয়নি। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে যে প্রশাসনিক অনুমোদন নিতে হয়, সেটাও নেয়নি তারা। নিজেরা প্রথম যে নকশা করেছিল, তা পরে বদলে ফেলা হয়।

অনিয়ম নজরে আসার পর শেষ দিকে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় অর্থ ছাড় বন্ধ করে দেয়। এরপর আর প্রকল্পের পুরো কাজ শেষ করতে পারেনি ঢাকা জেলা প্রশাসন। ওদিকে ভবন নির্মাণ সম্পর্কিত নথিপত্র জেলা প্রশাসন থেকে গায়েব হয়ে গেছে।

ঢাকা জেলা পরিষদের প্রশাসক মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘২০১৭ সালে আমি দায়িত্ব নেওয়ার পর টাওয়ার ভবনের খবর নিয়ে জানতে পারি কোনো ফাইল নেই। সব গায়েব হয়ে গেছে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাছে গিয়ে ভবনের নকশা দেখতে চাই। তারা নকশাও দেখাতে পারেনি।’ তিনি বলেন, পরে ভবনের একটি নকশা করা হয়েছে। কিন্তু এখন মন্ত্রণালয় বলছে রাজউকের অনুমোদন নেই ভবনটির।

মাহবুবুর রহমান প্রশ্ন করেন, অনুমোদন ছাড়া প্রশাসনের সামনে কীভাবে ২০ তলা একটি ভবন হয়ে গেল?

উল্লেখ্য, ২০১১ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত ঢাকা জেলা পরিষদের প্রশাসক ছিলেন সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসিনা দৌলা।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

সত্যের সন্ধানে নির্ভীক কিছু তরুণ সংবাদকর্মী নিয়ে আমাদের পথচলা

তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন ডিএফপি’র মিডিয়া তালিকাভুক্ত ঢাকা জেলার একমাত্র স্থানীয় পত্রিকা