1. dailyfulki04@gmail.com : dfulki :
  2. fulki04@yahoo.com : Daily Fulki : Daily Fulki
বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ১২:৫৪ অপরাহ্ন
সর্বশেষ খবর
আশুলিয়ায় চিকিৎসকের বাসায় প্রেমিকার আত্মহত্যা সাভারে শেখ পরশের সুস্থতা কামনায় যুবলীগ নেতার দোয়া মাহফিল অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে সাগরে ট্রলারডুবি, সাঁতরে সৈকতে ফিরলেন ৩১ রোহিঙ্গা আশুলিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় ওয়ালটন শ্রমিকের মৃত্যু বাংলাদেশে গ্রহণযোগ্য অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন জরুরি : সাভারে ব্রিটিশ হাইকমিশনার সাভারে চাঁদার দাবিতে হাত-পা বেঁধে মারধর পঞ্চগড়ে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে হত্যা, সাভারে গ্রেফতার ধামরাইয়ে পূজা মন্ডপে নিরাপত্তায় আনসারদের খোঁজ রাখেন না কেউ সিংগাইরে রাইস মিল মেকানিক্সকে তুলে নিলো যুবলীগ নেতা, মিলছে না হদিস সাভারে হলমার্ক গ্রুপের ভেতর নিরাপত্তা প্রহরী খুন, হত্যাকান্ডটি রহস্যময়

ধামরাই শিক্ষা কর্মকর্তাদের জরাজীর্ণ অফিস কক্ষে চলছে নিয়মিত সেবা

  • আপডেট : সোমবার, ২৯ আগস্ট, ২০২২
  • ৬২ বার দেখা হয়েছে

ধামরাই প্রতিনিধি : ধামরাইয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের অফিস করতে হচ্ছে একটি জরাজীর্ণ কক্ষে। কক্ষের ছাদ থেকে পলেস্তরা খসে পড়ে ছাদের রড বের হয়ে গেছে। শুধু ছাদ নয় দেওয়ালের প্লাস্টার খুলে খুলে পড়ছে। দেখতে একেবারেই নোংড়া ও জরাজীর্ণ। সেই ছাদের নিচে বসেই অফিস করতে হচ্ছে ঝুঁকি নিয়ে।

পুরনো জরাজীর্ণ এ কক্ষটি সংস্কারের অভাবে বিপদের আশঙ্কা নিয়েই কর্মকর্তারা দাপ্তরিক কাজ করছেন। উপজেলা পরিষদের দ্বিতল ভবনের নিচতলায় দুটি কক্ষে সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তারা অফিস করেন। এরমধ্যে একটি কক্ষে নেই শৌচাগার। অন্যদের শৌচাগার ব্যবহার করতে হয় তাদের। এরমধ্যে একটি কক্ষে রয়েছে মাত্র পুরনো একটি বৈদ্যুতিক পাখা। পাখাটির একটি ব্লেড ভেঙে পড়ে গিয়েছে। ফলে নিজেদের টাকায় কেনা দুটি ছোট টেবিল ফ্যান বসিয়ে অফিস করছেন উপজেলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা নীনা পারভিন ও ফাতেমা বেগম। নেই ভালমানের কোন চেয়ার-টেবিল। সরকারি অফিসে প্লাষ্টিকের চেয়ারও দেখা যায় বর্তমান এ যুগে। জানালার কাঠও নষ্ট হয়ে গেছে। ধামরাই উপজেলায় ১৭১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এরমধ্যে নীনা পারভীন ১৭টি এবং ফাতেমা বেগম ২৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভালমন্দ দেখাশোনা করে থাকেন।

সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা নীনা পারভীন বলেন, প্রায় দুই বছর ধরে এ অবস্থায় অফিস করছি। অফিস কক্ষে বসে কাজ করতে গিয়ে পলেস্তরা খসে পড়ে নষ্ট হচ্ছে জামাকাপড় ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র। জরাজীর্ণ পরিবেশের কথা একাধিকবার উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে জানিয়েছি। কিন্তু কোন কাজ হচ্ছে না।

সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা ফাতেমা বেগম বলেন, আমরা যে কক্ষে বসে দাপ্তরিক কাজকর্ম করি এর চেয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের অফিস কক্ষের পরিবেশও অনেক ভালো।
এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা তাজমুন নাহার বলেন, আমি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বলেছি সংস্কার করে দিতে। কিন্তু কোন কাজ হয়নি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকী বলেন, অতিশীঘ্রই সংস্কারের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

সত্যের সন্ধানে নির্ভীক কিছু তরুণ সংবাদকর্মী নিয়ে আমাদের পথচলা

তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন ডিএফপি’র মিডিয়া তালিকাভুক্ত ঢাকা জেলার একমাত্র স্থানীয় পত্রিকা