1. dailyfulki04@gmail.com : dfulki :
  2. fulki04@yahoo.com : Daily Fulki : Daily Fulki
বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০১:২৫ অপরাহ্ন
সর্বশেষ খবর
আশুলিয়ায় চিকিৎসকের বাসায় প্রেমিকার আত্মহত্যা সাভারে শেখ পরশের সুস্থতা কামনায় যুবলীগ নেতার দোয়া মাহফিল অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে সাগরে ট্রলারডুবি, সাঁতরে সৈকতে ফিরলেন ৩১ রোহিঙ্গা আশুলিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় ওয়ালটন শ্রমিকের মৃত্যু বাংলাদেশে গ্রহণযোগ্য অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন জরুরি : সাভারে ব্রিটিশ হাইকমিশনার সাভারে চাঁদার দাবিতে হাত-পা বেঁধে মারধর পঞ্চগড়ে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে হত্যা, সাভারে গ্রেফতার ধামরাইয়ে পূজা মন্ডপে নিরাপত্তায় আনসারদের খোঁজ রাখেন না কেউ সিংগাইরে রাইস মিল মেকানিক্সকে তুলে নিলো যুবলীগ নেতা, মিলছে না হদিস সাভারে হলমার্ক গ্রুপের ভেতর নিরাপত্তা প্রহরী খুন, হত্যাকান্ডটি রহস্যময়

সাভারে স্কুল ছাত্রী হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন

  • আপডেট : শনিবার, ২০ আগস্ট, ২০২২
  • ৭৫ বার দেখা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার : সাভারে লিটল স্টার স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থী সুমনা আক্তার (১৬) হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন করেছে প্রতিষ্ঠানির শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিবাবকরা।

গতকাল শনিবার বেলা ১১টারদিকে সাভারের বিরুলিয়া রোডের শাহীবাগ এলাকায় মানববন্ধন করেন তারা।

মানববন্ধনে নিহত সুমনার বাবা নির্মাণ শ্রমিক মোহাম্মদ সুমন বলেন, সুমনা গত ২৬শে জুন সন্ধ্যা ৭টারদিকে প্রাইভেট পড়ার কথা বলে বাসা থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হয়। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাকে না পেয়ে গত ৮ জুন এ ঘটনায় সাভার মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করি। গত ১২ আগস্ট আমাদের এলাকার একটি পোশাক কারখানার সামনে মেয়ের ছবি টাঙ্গানো দেখে জানতে পারি নিখোঁজের রাতেই মেয়ের মরদের উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরে পুলিশে যোগাযোগ করা হলে হত্যায় জড়িত সাভার বাজার বাসস্ট্যান্ড এলাকার হকার আশিক (২২), রাকিব (২০), সাকিব (২০) ও মিজানুর রহমান (২০)কে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ওরা আমার মেয়েকে হত্যা করেছে। আমি ওদের ফাঁসি চাই।

লিটল স্টার স্কুল এন্ড কলেজর প্রধান শিক্ষক মোঃ তাজুল ইসলাম খান বলেন, সুমনা আমাদের প্রতিষ্ঠানের মানবিক বিভাগের মেধাবী শিক্ষার্থী ছিল। পরিকল্পিতভাবে ওকে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকারীদের দ্রুত আইনে বিচার করে সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসির দাবি জানাই।

সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আব্দুল হক বলেন, সুমনা হত্যার ঘটনায় তার পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলে ও ঘটনাস্থলের (যেখান থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়) সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করে হত্যার সাথে সরাসরি জড়িত চারজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হলে সবাই হত্যায় জড়িত মর্মে আদালতে শিকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। হত্যায় যারা যারা জড়িত সবাইকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

প্রেম ঘটিত কারণে বিরোধের জেড়ে সুমনাকে পরিকল্পিতভাবে ডেকে নিয়ে ধারালো অস্ত্রদিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে আসামীরা। পরে তার লাশ হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যায় আসামীরা। নিহত সুমনার শরীরে ১৪টি কোপের চিহ্ন ছিল বলে জানায় পুলিশের এই কর্মকর্তা।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

সত্যের সন্ধানে নির্ভীক কিছু তরুণ সংবাদকর্মী নিয়ে আমাদের পথচলা

তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন ডিএফপি’র মিডিয়া তালিকাভুক্ত ঢাকা জেলার একমাত্র স্থানীয় পত্রিকা