1. dailyfulki04@gmail.com : dfulki :
  2. fulki04@yahoo.com : Daily Fulki : Daily Fulki
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৮:০৪ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ খবর
সিংগাইরে গণডাকাতি মামলার ৭ আসামি গ্রেফতার, অস্ত্রসহ লুন্ঠিত মালামাল উদ্ধার বিদেশিদের কাছে সরকারের উন্নয়ন ও বিএনপি’র অপশাসনের চিত্র তুলে ধরুন: প্রধানমন্ত্রী শাকিব-বুবলীর বিচ্ছেদও হয়েছে? মন্দির-মণ্ডপে আ. লীগ কর্মীদের পাহারা বসানোর নির্দেশ কাদেরের নভেম্বরে হচ্ছে না ডিসি সম্মেলন বিএনপি হাঁটুভাঙা নয়, আ. লীগেরই কোমর ভেঙেছে: ফখরুল গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন শুরু ১৭ অক্টোবর পিস্তল ঠেকিয়ে দুবাইফেরত ব্যক্তির সোনা ছিনতাইয়ে দুই পুলিশ হাতিয়ায় দুই জলদস্যু বাহিনীর গোলাগুলিতে নিহত ৩ ধামরাইয়ে মাদক বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে একট্টা এলাকাবাসী, ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেপ্তারের দাবি

চকবাজারে আগুন দগ্ধ ৬ জনের মরদেহ মিটফোর্ড মর্গে

  • আপডেট : সোমবার, ১৫ আগস্ট, ২০২২
  • ৯১ বার দেখা হয়েছে

রাজধানীর চকবাজারের দেবীদাসলেন এলাকায় প্লাস্টিক কারখানা ও গোডাউনে লাগা আগুনে অগ্নিদগ্ধ ছয়জনের মরদেহ স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ (মিটফোর্ড হাসপাতাল) মর্গে নেওয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে একজনের মরদেহ শনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। তবে ওই ব্যক্তির নাম-পরিচয় এখনো জানাতে পারেনি সংস্থাটি।

সোমবার (১৫ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৫টার পর মরদেহগুলো ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে নেওয়া হয়।

এসময় হাসপাতালের বাইরে নিহতদের স্বজদের কান্না আর আহাজারিতে পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে। প্রত্যেকেই তাদের স্বজনের ছবি নিয়ে বারবার ফায়ার সার্ভিস ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে শনাক্তের দাবি জানান।

তবে মারাত্মকভাবে দগ্ধ হওয়ায় সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত কারও মরদেহ শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি বলে জানা গেছে।

এদিন দুপুর ১২টার দিকে ওই প্লাস্টিক কারখানায় লাগা আগুন ফায়ার সার্ভিসের ১০টি ইউনিটের প্রায় সোয়া দুই ঘণ্টার চেষ্টায় দুপুর ২টার পর নিয়ন্ত্রণে আসে। ওই ভবন থেকে এরইমধ্যে ছয়জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক বজলুর রশিদ জানিয়েছেন, উদ্ধার হওয়া মরদেহগুলোর মধ্যে পাঁচজনের চেহারা বোঝা যাচ্ছে না। একজনের চেহারা শনাক্ত করা গেছে।

এর আগে ফায়ার সার্ভিসের ডিউটি অফিসার খালিদা ইয়াসমিন জানিয়েছিলেন, চকবাজার কামালবাগের দেবীদাস ঘাটের একটি পলিথিন কারখানায় আগুন লাগার পরই তা একটি রেস্তোরাঁয় ছড়িয়ে পড়ে। দুপুর ১২টায় আগুন লাগার খবর পেয়ে প্রথমে ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি ইউনিট ও পরে আরও চারটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়। তবে স্থানীয় ও উৎসুক জনতার ভিড়ে আগুন নেভাতে বেশ বেগ পেতে হয়।

ওই প্লাস্টিক কারখানার ভবনসহ আশপাশের সব ভবন ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ জানিয়ে দুপুরে ঘটনাস্থলে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশনস অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স) লেফটেন্যান্ট কর্নেল জিল্লুর রহমান।

তিনি বলেন, আমরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার পর দেখতে পেয়েছি, আশপাশের অনেক ভবনেই যত্রতত্র এরকম বিভিন্ন কারখানা গড়ে উঠেছে, যা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। এতে এসব কারখানায় যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। অনেক ভবনে বাসিন্দাও আছেন। তাদের জন্য এসব ভবন বেশি ঝুঁকিপূর্ণ।

ওই ভবনে পুরোপুরি তল্লাশির কাজ শেষ হলে ভেতরে আরও কেউ হতাহত আছেন কি না, তা জানা যাবে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

সত্যের সন্ধানে নির্ভীক কিছু তরুণ সংবাদকর্মী নিয়ে আমাদের পথচলা

তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন ডিএফপি’র মিডিয়া তালিকাভুক্ত ঢাকা জেলার একমাত্র স্থানীয় পত্রিকা