1. dailyfulki04@gmail.com : dfulki :
  2. fulki04@yahoo.com : Daily Fulki : Daily Fulki
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৭:৩৪ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ খবর
সিংগাইরে গণডাকাতি মামলার ৭ আসামি গ্রেফতার, অস্ত্রসহ লুন্ঠিত মালামাল উদ্ধার বিদেশিদের কাছে সরকারের উন্নয়ন ও বিএনপি’র অপশাসনের চিত্র তুলে ধরুন: প্রধানমন্ত্রী শাকিব-বুবলীর বিচ্ছেদও হয়েছে? মন্দির-মণ্ডপে আ. লীগ কর্মীদের পাহারা বসানোর নির্দেশ কাদেরের নভেম্বরে হচ্ছে না ডিসি সম্মেলন বিএনপি হাঁটুভাঙা নয়, আ. লীগেরই কোমর ভেঙেছে: ফখরুল গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন শুরু ১৭ অক্টোবর পিস্তল ঠেকিয়ে দুবাইফেরত ব্যক্তির সোনা ছিনতাইয়ে দুই পুলিশ হাতিয়ায় দুই জলদস্যু বাহিনীর গোলাগুলিতে নিহত ৩ ধামরাইয়ে মাদক বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে একট্টা এলাকাবাসী, ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেপ্তারের দাবি

নারী চিকিৎসককে গলা কেটে হত্যায় বন্ধু রেজা গ্রেপ্তার

  • আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট, ২০২২
  • ৯৫ বার দেখা হয়েছে

রাজধানীর পান্থপথে একটি আবাসিক হোটেলে জান্নাতুল নাঈম সিদ্দীক (২৭) নামের এক চিকিৎসককে হত্যার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। আজ বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম থেকে রেজাউল করিম নামের ওই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার রেজাউল করিমকে ঢাকায় আনা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার সহকারী পরিচালন আ ন ম ইমরান খান। তিনি বলেন, ঢাকায় এনে রেজাউলকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

এর আগে গতকাল বুধবার রাতে পান্থপথের ফ্যামিলি সার্ভিস অ্যাপার্টমেন্ট নামের একটি আবাসিক হোটেল থেকে জান্নাতুলের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় গতকালই একটি হত্যা মামলা করেন নিহত নারীর বাবা চিকিৎসক শফিকুল আলম।

দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিল সদ্য এমবিবিএস পাস করা জান্নাতুল নাঈম সিদ্দীক (২৭) ও রেজাউল করিম রেজার। প্রেমের সম্পর্কের জের ধরে তারা দুজনে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে গিয়েছেন এবং বিভিন্ন হোটেলেও থেকেছেন। তাদের সম্পর্কের বিষয়টি জানতো মেয়ের পরিবার। এক পর্যায়ে প্রেমিক রেজা বিয়ের প্রস্তাব দেন মেয়ের পরিবারকে। কিন্তু রেজার চরিত্রগত সমস্যার কারণে মেয়ের পরিবার সে প্রস্তাবে রাজি ছিল না।

নিহতের পারিবারিক সূত্র, একাধিক গোয়েন্দা সূত্র অনুসন্ধানে এসব চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

নিহতের পরিবারের দাবি, বিয়েতে রাজি না হওয়ায় জান্নাতুলকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে নৃশংসভাবে গলা কেটে হত্যা করেছে রেজা। পরিবারের অমতে বিয়ের পিঁড়িতে না বসাই কাল হলো মেয়েটির। এ ঘটনায় তারা সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ বিচারের দাবি জানিয়েছে।

পুলিশ সূত্র জানায়, ঘাতক প্রেমিক রেজাউল করিম রেজা বেকার হওয়ায় বিয়ে দিতে রাজি ছিল না জান্নাতুলের পরিবার। এ নিয়ে প্রেমের সম্পর্কে কলহ চলছিল। কিন্তু তারা দুজনই প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় চাইলেই পরিবারের অমতে বিয়ে করতে পারতেন। তাহলে কি এ হত্যাকাণ্ডের পেছনে মোটা অঙ্কের টাকার দেনা-পাওনা, প্রেমিকের অন্য কোনো সম্পর্ক জেনে যাওয়া, অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়া কিংবা তৃতীয়পক্ষের কোনো ব্যক্তিকে দিয়ে ধর্ষণচেষ্টার ঘটনা নিহিত রয়েছে? যদিও আপাতত এসব প্রশ্নের সঠিক উত্তর নেই আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে।

নিহত জান্নাতুল নাঈম সিদ্দীকির বাবা শফিকুল আলম বলেন, তাদের গ্রামের বাড়ি নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলার চন্দনবাড়ি গ্রামে। রাজধানীর রাজারবাগে ২ নম্বর মোমেনবাগ দোলনচাঁপা ভবনে থাকেন তারা। মগবাজার কমিউনিটি মেডিকেল কলেজ থেকে সদ্য এমবিবিএস পাস করেন জান্নাতুল। এরপর ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে গাইনি বিষয়ে একটি কোর্সে অধ্যয়নরত ছিলেন।

বুধবার সকাল আটটার দিকে জান্নাতুল বাসা থেকে বের হন ক্লাসের কথা বলেন। রাত ১০টার দিকে বাসায় ফিরবেন বলে জানান। তবে বাসায় না ফেরায় রাত ১১টার দিকে তার ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন পরিবারের সদস্যরা।

অভিযুক্ত রেজাউল করিম রেজার পরিচয় সম্বন্ধে জান্নাতুলের বাবা বলেন, একদিন তার সঙ্গে বন্ধু হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি কক্সবাজার। গাজীপুরের জয়দেবপুরে একটি বেসরকারি ব্যাংকে কর্মরত ছিলেন রেজা। ব্যাংকে নারী কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে চাকরি হারিয়েছেন। এর বেশি কিছু জানা নেই। মামলার কপিতেও রেজার পরিচয় ও ঠিকানা অজ্ঞাত হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে শফিকুল আলম বলেন, আমার তিন মেয়ে। জান্নাতুল ছিল দ্বিতীয়। অনেক স্বপ্ন ছিল মেয়েটিকে নিয়ে। তার ইচ্ছা ছিল চিকিৎসক হবে। সে অনুযায়ী প্রাইভেট মেডিকেল কলেজে ভর্তি করাই এবং সম্প্রতি সে এমবিবিএস পাস করে। আমার কয়েক লাখ টাকা খরচও হয়েছে। তবে আমার মেয়ে এভাবে চলে যাবে আমি এখনো কল্পনা করতে পারছি না।

 

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

সত্যের সন্ধানে নির্ভীক কিছু তরুণ সংবাদকর্মী নিয়ে আমাদের পথচলা

তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন ডিএফপি’র মিডিয়া তালিকাভুক্ত ঢাকা জেলার একমাত্র স্থানীয় পত্রিকা