1. dailyfulki04@gmail.com : dfulki :
  2. fulki04@yahoo.com : Daily Fulki : Daily Fulki
বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ১০:২০ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ খবর
ইতালির বাংলাদেশ দূতাবাসে ভাংচুর, ১৫ দিনের মধ্যে পাসপোর্ট না পেলে দলবদ্ধ আত্মহত্যার হুমকি হাজারও প্রবাসীর রাজধানীতে আওয়ামী লীগের ‘শোডাউন’, যানজটে দুর্ভোগ জাতিসংঘ প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বিএনপির বৈঠক, যেসব তথ্য দিল বায়ুদূষণে ২০১৯ সালে ঢাকায় ২২ হাজার মানুষের মৃত্যু চুরি হওয়া রিকশা খুঁজতে গিয়ে চোর চক্র গড়ে তোলেন কামাল ‘হাওয়া’ সিনেমার পরিচালকের বিরুদ্ধে মামলা সাভারে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে পাশবিক নির্যাতন অভিযোগ আশুলিয়ায় কমার্স ব্যাংকে ডাকাতি ও খুন: ছয়জনের মৃত্যুদণ্ড হাইকোর্টে বহাল সিংগাইরে মরণ ফাঁদে প্রাণ গেল মাদরাসা ছাত্রীর! যাত্রাবাড়ীতে ইউনিট আওয়ামী লীগ সভাপতি খুন

ধামসোনা ইউনিয়ন পরিষদের সচিব অসম্পূর্ণ, বাহুল্য তথ্য দিয়ে বাসায় দাওয়াত চাইলেন

  • আপডেট : মঙ্গলবার, ৫ জুলাই, ২০২২
  • ২৯৯ বার দেখা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার : তথ্য অধিকার আইনে তথ্য চেয়ে আবেদন করা হলে অসম্পূর্ণ বাহুল্য তথ্য প্রদান করে আবেদনকারীর বাসায় দাওয়াত খেতে চাইলেন ধামসোনা ইউনিয়ন পরিষদের সচিব আমির হোসেন। এ অসম্পূর্ণ বাহুল্য তথ্যের বিষয়ে সচিব বলেন, বাসায় দাওয়াত দিলে তথ্য সঠিক হবে। এর আগে আবেদনকারীকে হয়রানী করার উদ্দেশ্যে তথ্যের জন্য অধিক মূল্য চালানের মাধ্যমে টাকা সরকারি কোষাগারে জমা করতে বাধ্য করেন ইউনিয়ন সচিব আমির হোসেন।

আমির হোসেন ভাকুর্তা ইউনিয়ন পরিষদে সচিব থাকা অবস্থায় ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে প্রায় ২ কোটি টাকার অনিয়ম করেছিলেন বলে বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে অভিযোগ করেছিলেন ওই ইউনিয়নের তৎকালীন সচিব মোহাম্মাদ আলী। সেখানে তিনি কাকতালীয়ভাবে রেহাই পেয়ে গেলেও পুনরায় তিনি ধামসোনা ইউনিয়ন পরিষদ সচিব হয়ে বহাল তবিয়েত থেকে প্রকল্পের টাকা নয়ছয় করে হাতিয়ে নিচ্ছেন লাখ লাখ টাকা।

এমনিই অভিযোগের বিষয়টি নিয়ে ধামসোনা ইউনিয়ন পরিষদের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিবের বরাবর তথ্য অধিকার আইনে আবেদন করা হয়। আবেদনের প্রেক্ষিতে সচিব তথ্য না দিয়ে বিভিন্নভাবে তালবাহনা করে অভিযোগকারীকে তথ্য দেই, দিচ্ছি বলে ঘুরাতে থাকে। অভিযোগকারী তথ্য না পেয়ে তথ্য কমিশনের স্মরাণাপন্ন হলে কমিশন তিন তিনবার সমন জারি করার পর ইউনিয়ন পরিষদ সচিব আমির হোসেন তথ্য দিতে বাধ্য হোন। কিন্তু দিয়েছেন অসম্পূর্ণ বা বাহুল্য তথ্য। তথ্য কমিশনের সেই নির্দেশ তোয়াক্ক না করে ইউপি সচিব আমির হোসন বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে অসম্পূর্ণ তথ্য দিয়ে আবেদনকারীকে হয়রানি করছে।

 

ইউপি সচিবের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগের পর ৭০/২০২২ নং অভিযোগে পাঁচ বছরে তথ্য সরবরাহর জন্য ২৩৫০ পৃষ্ঠার তথ্যের ফটোকপি বাবদ ৪,৭০০ টাকা চালান কপির মাধ্যমে সরকারি কোষাগারে অর্থ জমা দেওয়ার জন্য চিঠি প্রদান করেন ইউপি সচিব আমির হোসেন।

পরে ২৩৫০ পাতার জন্য ৪,৭০০ টাকা জমা দিলেও মিলেছে ২২০০ পাতা তথ্য। এরমধ্যে দেখা যায়, প্রায় ৯০০ পাতা তথ্য দিয়েছে বাহুল্য বা ভুয়া। ১% ভূমি হস্তন্তার কর থেকে যে আয় হয়েছে তার থেকে ব্যয়ের পরিমাণ বেশী দেখানো হয়েছে। নিজস্ব তহবিলের ১% ভূমি হস্তন্তার কর প্রকল্পের নামের যে তথ্য দেয়া হয়েছে তার অধিকাংশ তথ্য মিলছে না কাজের এস্টিমেটর সাথে। এছাড়া আবেদনকারীকে হয়রানীর উদ্দেশ্যে চাহিত তথ্যের বাহিরে অন্য অর্থ বছরের প্রায় ৪০০ পাতা প্রকল্পের এস্টিমেট, একাধিক চালান কপি, ইউনিয়ন পরিষদ ভিজিড কপি দেয়া হয়েছে।

জানা যায়, ধানসোনা ইউনিয়ন পরিষদের সচিবরে অনিয়ম ও দুর্নীতি অভিযোগ পেয়ে গত ০৭/০৩/২০২১ তারিখে তথ্য অধিকার আইনে ইউনিয়ন পরিষদের বাৎসরিক আয় ও ব্যয়ের বিবরণ চেয়ে আবেদন করেন দৈনিক ফুলকি ও আমাদের নতুন সময়ের রির্পোটার মো: ইমদাদুল হক।

আবেদনের নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তথ্য না পেয়ে গত ২৬/০৬/২০২১ তারিখে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান বরাবর আপীল করা হয়। আপীলের কোন জবাব না পেয়ে ২৯/০৯/২০২১ তারিখে তথ্য কমিশন কাছে অভিযোগ দায়ের করা হয়। তথ্য কমিশন শুনানীর জন্য ০৫/০১/২০২২ সমন জারী করে। সমন জারীতে ইউনিয়ন সচিব উপস্থিত না থাকায় কমিশন ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে তথ্য প্রদানের নির্দেশ দেয়। তথ্য কমিশনের সিদ্ধান্তের নির্ধারিত সময়ের পরও তথ্য প্রদান না করায় ১৫/০৩/২০২২ তারিখে পুনরায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। অভিযোগের শুনানীর তারিখে আবারও উপস্থিত না থাকায় তথ্য কমিশন ক্ষুব্ধ হয়ে পুনরায় শুনানীর ০৯/০৬/২০২২ তারিখ নির্ধারণ করেন এবং সে সাথে ইউনিয়ন সচিবকে উপস্থিতি নিশ্চিত করতে সাভার উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে নির্দেশ প্রদান করেন। পরে শুনানীতে উপস্থিত হয়ে ইউপি সচিব বিভিন্ন অজুহাত দেখান এবং উপস্থিত না থাকার জন্য তথ্য কমিশনের কাছে ক্ষমা চান। শুনানীতে তথ্য মূল্য সরকারি কোষাগারে জমা দেয়ার ৭ কার্যদিবসের মধ্যে তথ্য প্রদান করার নির্দেশ দেন তথ্য কমিশন।

এ ব্যাপারে ধামসোনা ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম বলেন, ভুয়া ও অসম্পূর্ণ তথ্য দেওয়ার কোন সুযোগ নেই। তবে সচিব যদি এমনটি করে থাকে তাহলে সচিবকে ধরতে বলেন তিনি।

 

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

সত্যের সন্ধানে নির্ভীক কিছু তরুণ সংবাদকর্মী নিয়ে আমাদের পথচলা

তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন ডিএফপি’র মিডিয়া তালিকাভুক্ত ঢাকা জেলার একমাত্র স্থানীয় পত্রিকা