1. dailyfulki04@gmail.com : dfulki :
  2. fulki04@yahoo.com : Daily Fulki : Daily Fulki
সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ১২:৩৩ অপরাহ্ন

কোরবানির হাটে হাজির বাদশা, মোহনবাবু, রাজাবাবুরা

  • আপডেট : শনিবার, ২ জুলাই, ২০২২
  • ৮৫ বার দেখা হয়েছে

লাল–সাদা রঙের মিশ্রণের মোটাতাজা গরু। মালিক আদর করে গরুটির নাম রেখেছেন ‘বাদশা’। রাজা-বাদশাদের মতোই গরুটির হাবভাব, হম্বিতম্বি যেন। অপরিচিত কেউ কাছে ঘেঁষলেই মাথা নাড়ছে সে। নাক দিয়ে ফোঁসফোঁস আওয়াজ বেরোচ্ছে। ভাবটা এমন, সুযোগ পেলেই যেন সজোরে গুতা দিয়ে দেবে। কোরবানির ঈদ সামনে রেখে গরুটি তোলা হয়েছে রাজধানীর গাবতলীর পশুর হাটে।

পাবনার সদর থানার দুবলিয়া এলাকার কৃষক মো. ফিরোজ মিয়া বাদশাকে হাটে এনেছেন। জানালেন, ফ্রিজিয়ান ক্রস জাতের বাদশার ওজন প্রায় ১ হাজার ৩০০ কেজি। নিজের পালিত গাভি থেকেই এর জন্ম, বয়স চার বছর। গতকাল শুক্রবার রাতে ১৪ হাজার টাকা ট্রাকভাড়া দিয়ে গরুটিকে হাটে আনা হয়।

আজ শনিবার দুপুরে গাবতলীর হাটে দাম জানতে চাইলে ফিরোজ মিয়া বলেন, ‘১৭ লাখ টাকা দাম চাইছি। কিছু কম হলেও এবার বিক্রি করে দেব। গ্রামে স্থানীয় পাইকাররা বাদশার জন্য ১৩ লাখ টাকা দাম বলেছিল।’

ফিরোজ মিয়া জানান, গতবারও কেরানীগঞ্জের একটি হাটে বাদশাকে নেওয়া হয়েছিল। সেবার দাম উঠেছিল ৯ লাখ টাকা। তখন তিনি ১৫ লাখ টাকা দাম চেয়েছিলেন।

নিজের প্রিয় গরুগুলোকে খামারিরা আদর করে বিভিন্ন নাম দিয়ে থাকেন। বাহারি সব নামের বিশালাকার এসব গরু হাটে আসা ক্রেতাদের আকর্ষণের কেন্দ্রে থাকে। অনেক ক্রেতাই কোরবানির জন্য এমন বাহারি নামের গরু কেনেন।

প্রতিবছরের মতো এবারও রাজধানীর বিভিন্ন হাটে এমন বাহারি নামের বিশালাকার গরুগুলো আসতে শুরু করেছে। আজ দুপুরে রাজধানীর গাবতলীর হাটে গিয়ে এমন সাতটি গরু দেখা গেছে।

এমন একটি গরুর নাম রাজাবাবু। পুরোটাই কালো রঙের লোমে আবৃত বিশালাকার এই গরু। খামারি ভাষাণ মিয়া গরুটি এনেছেন মেহেরপুরের গাংনী থেকে। জানালেন, সাত মাস বয়সে রাজাবাবুকে কিনেছেন। এখন এর বয়স পাঁচ বছর।

ভাষাণ মিয়া জানান, রাজাবাবু ফ্রিজিয়ান ক্রস জাতের গরু। ওজন প্রায় ১ হাজার ৪০০ কেজি বা ৩৫ মণ হবে। রাজাবাবুকে পালা হয়েছে গম–ভুট্টার ভুসি, ছোলা, খড় ও ঘাস খাইয়ে। প্রতিদিন তিন বেলা গোসল করানোর পাশাপাশি রাজাবাবুকে প্রাতর্ভ্রমণ বা সান্ধ্যভ্রমণের মতো নিয়ম করে হাঁটানোও হতো।

দাম জানতে চাইলে ভাষাণ মিয়া বলেন, ‘২০ লাখ টাকা দাম চাইছি। বাকিটা নির্ভর করছে হাটের পরিস্থিতির ওপর।’ তিনি আরও বলেন, ‘এখন করোনার খারাপ অবস্থা অনেকটাই কেটে গেছে। মানুষের হাতে টাকাপয়সাও রয়েছে। আশা করছি, এবার ভালো দামে বিক্রি করতে পারব।’ এলাকার গরু ব্যবসায়ীরা রাজাবাবুর জন্য ১১ লাখ টাকা দাম দিতে চেয়েছিলেন বলে তিনি জানান।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

সত্যের সন্ধানে নির্ভীক কিছু তরুণ সংবাদকর্মী নিয়ে আমাদের পথচলা

তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন ডিএফপি’র মিডিয়া তালিকাভুক্ত ঢাকা জেলার একমাত্র স্থানীয় পত্রিকা