ইংরেজিতে বলে কিডনি বিনস। আমরা যাকে চিনি রাজমা হিসেবে। পার্শবর্তী দেশ ভারতে এটি বেশ জনপ্রিয় একটি খাবার। সাদা, ক্রিম, কালো, লাল, বেগুনি, স্পটেড, স্ট্রাইপড এবং মোটলড নানা রকম কিডনি বিনস পাওয়া যায়। রাজমা উদ্ভিজ্জ প্রোটিনের একটি প্রধান উৎস এবং এর উপকারিতা অনেক। রাজমার কয়েকটি উপকারিতার কথা প্রকাশ করেছে এনডিটিভি।

ইউএসডিএ অনুযায়ী, ১০০ গ্রাম কাঁচা কিডনি বিনে প্রায় ২৪ গ্রাম প্রোটিন রয়েছে। পুষ্টিবিদরা জানিয়েছেন, রাজমা প্রচুর প্রোটিন এবং উচ্চ মানের ফাইবারসমৃদ্ধ। যদি একটি খাবারেই বিভিন্ন অ্যামাইনো অ্যাসিড চান তবে শস্য ও বাদামের মিশ্রণ খাদ্য হিসেবে উপকারী। তবে একসঙ্গে অনেক না খেয়ে, খেতে হবে রয়েসয়ে। রাজমায় প্রচুর প্রোটিন ফ্যাসিওলিন থাকে যাতে কারো কারো অ্যালার্জিও দেখা যায়।

রাজমা দ্রবণীয় এবং অদ্রবণীয় ফাইবার সমৃদ্ধ। আমাদের পাচনতন্ত্র সুস্থ রাখতে সাহায্য করে ফাইবার, পাশাপাশি অন্ত্রের সমস্যা কমায়। কিন্তু একবারে বেশি খেয়ে ফেললে গ্যাস বা পেট ফাঁপার মতো সমস্যাও হতে পারে।

jagonews24

রাজমা কার্বোহাইড্রেটে ভরপুর। তবে এই কার্বোহাইড্রেট মোটেই ক্ষতিকারক নয়। এই কার্বোহাইড্রেট হজমে বিলম্ব ঘটায়, যার ফলে রক্তপ্রবাহে শর্করাও নির্গত হয় অল্প। কিডনি বিন কম গ্লাইসেমিক ইনডেক্স সম্পন্ন হওয়ায় এটি ডায়াবেটিসের রোগীর জন্য আদর্শ খাদ্য।

jagonews24

রাজমায় রয়েছে রক্ত তৈরি করে এমন আয়রন ও ফসফরাস। যা হাড় ও দাঁত মজবুত রাখতে সাহায্য করে, এর মধ্যে থাকা ভিটামিন কে স্নায়ুতন্ত্রের রক্ষাকারী হিসেবে কাজ করে।

jagonews24

ওজন কমানোর চেষ্টা করলে পাতে রাখুন রাজমা। কারণ এটি উচ্চমানের প্রোটিন এবং ফাইবারে ভরা। অনেকক্ষণ পেট ভরিয়ে রাখে বলে এটি বারে বারে খাওয়ার প্রবণতা কমায়, ফলে ওজনও থাকে নিয়ন্ত্রণে। এছাড়াও এর মধ্যে রয়েছে প্রতিরোধী স্টার্চ। যা ওজন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে।