কালিয়াকৈর প্রতিনিধি : পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর স্বামী রেললাইনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা মন্ডলপাড়া এলাকায় বৃহস্পতিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।

এই দুজন হলেন কালিয়াকৈরের চন্দ্রা মন্ডলপাড়া এলাকার দুলাল উদ্দিন (৪০) ও তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী আয়শা বেগম (২৫)। রেলওয়ে পুলিশ দুলালের লাশ উদ্ধার করেছে। আর আয়শার লাশ উদ্ধার করেছে কালিয়াকৈর থানার পুলিশ। এদিকে দুলালের প্রথম পক্ষের মেয়ে দোলন আক্তারের (১৩) দাবি, স্ত্রীকে হত্যার পর দুলাল আত্মহত্যা করতে যাচ্ছেন বলে ফোনে তাকে জানান।

 

এই দম্পতির প্রতিবেশী ও পুলিশ জানায়, দুলাল উগ্র মেজাজের লোক। তিনি প্রথম স্ত্রী রেহেনা বেগম এবং দুই সন্তান দোলন আক্তার ও রায়হান উদ্দিনকে রেখে দিনাজপুরের মেয়ে আয়শা বেগমকে বিয়ে করেন। দ্বিতীয় সংসারেও দুই সন্তান আছে। প্রথম স্ত্রী রেহেনা বেগম পারিবারিক কলহের জেরে সাত বছর আগে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছিলেন। এর পর থেকে দোলন ও রায়হান দাদীর সঙ্গে উপজেলার চন্দ্রা মন্ডলপাড়া এলাকায় থাকে। দুলাল তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে পাশেই অন্য একটি বাড়িতে থাকেন। বেশ কিছুদিন ধরে আয়শার সঙ্গে দুলালের ঝগড়া চলছিল।

প্রাথমিকভাবে পুলিশের ধারণা, পারিবারিক কলেহের জেরে কোনো এক সময় দুলাল তাঁর স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। বৃহস্পতিবার সকাল নয়টার দিকে তিনি বাড়ি থেকে বের হয়ে যান। পরে ট্রেনের নিচে ঝাঁপিয়ে পড়েন।

মেয়ে দোলনের ভাষ্য, ‘বাবা সকালে আমার কাছ থেকে ১০০ টাকা নিয়ে গেছে। সকাল ৯টার দিকে আমাকে ফোন করে বলেন, তোর মাকে হত্যা করেছি। আমাকে ক্ষমা করে দিস। এমনেও মরতে হবে, ওমনেও ফাঁসিতে ঝুলে মরতে হবে। তাই আমিও মরে যাচ্ছি। এর ফোন কেটে দেন। আমি অনেকবার ফোন দিলেও ফোন ধরেননি। পরে একজন ফোন ধরে বলেন, বাবা ট্রেন দুর্ঘটনায় মারা গেছেন।’

খবর পেয়ে কালিয়াকৈর থানা–পুলিশ চন্দ্রা মন্ডলপাড়া এলাকায় ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহত আয়শা বেগমের লাশ উদ্ধার করে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এদিকে উপজেলার কালামপুর এলাকায় ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে দুলালের মৃত্যুর খবর পেয়ে রেলওয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

গাজীপুর রেলওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুল মান্নান বলেন, দুলালের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনোয়ার হোসেন চৌধুরী বলেন, দুলাল উগ্র মেজাজের ছিলেন বলে জানা গেছে। স্ত্রীকে হত্যার পর আত্মহত্যা করেছেন তিনি।