খেলোয়াড়ি জীবনের সাফল্যের ধারা কোচিং ক্যারিয়ারেও টেনে এনেছেন ফ্রান্সের কিংবদন্তি ফুটবলার জিনেদিন জিদান। উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে জিতেছেন হ্যাটট্রিক শিরোপা, পেয়েছেন ক্লাব বিশ্বকাপের ট্রফিও। বাকি ছিল স্প্যানিশ লা লিগার শ্রেষ্ঠত্ব, সেটিও পেয়েছেন চলতি মৌসুমে।

২০১৯-২০ মৌসুমে লা লিগার শিরোপা জিতলেও, খুইয়েছেন ইউরোপিয়ান শ্রেষ্ঠত্ব। এর আগে কোচ হিসেবে তিন মৌসুমে দায়িত্ব পালন করে, তিনবারই চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। কিন্তু এবার বাদ পড়ে গেছেন দ্বিতীয় রাউন্ড থেকেই। কোচ হিসেবে চ্যাম্পিয়ন না হতে পারার অভিজ্ঞতা এবারই প্রথম হলো জিদানের।

প্রথম লেগের ম্যাচে ঘরের মাঠে হেরে যাওয়ায় ম্যানচেস্টার সিটির মাঠে জয়ব্যতীত অন্যকিছু ভাবার সুযোগ ছিল না জিদানের রিয়াল মাদ্রিদের সামনে। কিন্তু নিজেদের রক্ষণের ভয়াবহ ভুলে জয় দূরে থাক, সান্ত্বনার ড্র’টাও পায়নি জিদানের শিষ্যরা। দুই লেগেই সমান ২-১ ব্যবধানে হেরে বিদায় নিয়েছে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে।

অথচ এর আগে যে তিন আসরে কোচ ছিলেন জিদান, চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদ। ২০১৫-১৬ মৌসুমের মাঝামাঝিতে রিয়ালের দায়িত্ব নিয়েছিলেন জিদান। সেবার চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে নগর প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে টাইব্রেকারে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল রিয়াল।

পরে ২০১৬-১৭ এবং ২০১৭-১৮তেও দলের দায়িত্ব পালন করেন জিদান। এর মধ্যে ২০১৬-১৭ ফাইনালে জুভেন্টাসকে ৪-১ এবং ২০১৭-১৮ ফাইনালে লিভারপুলকে ৩-১ গোলে হারিয়ে হ্যাটট্রিক শিরোপার স্বাদ পান জিদান ও রিয়াল মাদ্রিদ।

তবে সে মৌসুমের পরই রিয়ালের দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ান জিদান। রিয়ালও ব্যর্থ হয় ২০১৮-১৯ মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগে। আয়াক্সের কাছে হেরে বিদায় নেয় শেষ ষোলো থেকে। চলতি মৌসুমের শুরুতে জিদান পুনরায় দায়িত্ব নিলেও, ভাগ্য বদলালো না। এবারও বাদ পড়তে হলো একই পর্যায় থেকে।