করোনাভাইরাসের কারণে মার্চের দ্বিতীয় সপ্তাহ তেকে বলতে গেলে থমকে গিয়েছিল পুরো পৃথিবী। ইউরোপ, আমেরিকাসহ সারা বিশ্বেই সমস্ত ক্রীড়া ইভেন্ট বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছিল সবাই। অলিম্পিক গেমস এক বছর পিছিয়েছে। ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ, কোপা আমেরিকাসহ, এমনকি সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপও পিছিয়ে দেয়া হয়েছে এক বছর।

ক্রিকেট বিশ্বেও অনেক বড় প্রভাব রেখে যাচ্ছে করোনা। কিন্তু আইসিসি দাবি করছে, করোনা মহামারির কারণে নাকি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের কোনোই ক্ষতি হয়নি। বরং, পরিকল্পনা অনুসারেই চলছে টেস্ট বিশ্বকাপ। আইসিসির জেনারেল ম্যানেজার জিওফ অ্যালার্ডিচ এমনটাই দাবি করলেন।

তবে পরিকল্পনা অনুসারে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ এগুলেও আইসিসি জেনারেল ম্যানেজার জানিয়ে দিয়েছেন, ফাইনালের তারিখ এখনই ঠিক করা সম্ভব নয়। কারণ, করোনার কারণে অনেকগুলো সিরিজ স্থগিত হয়েছে। এগুলোর সূচি ঠিক করার পরই বোঝা যাবে, কবে ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে।

আগের সূচি অনুসারে আগামী বছর জুনে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল। তার আগে ২ বছরের মধ্যে শীর্ষ ১০টি দল হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে ৬টি করে মোট ১২টি সিরিজ খেলার কথা। যার ৬টি ঘরের মাটিতে, ৬টি খেলার কথা বিদেশের মাটিতে।

কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে পুরো সূচি ওলট-পালট হয়ে যায়। জিওফ অ্যালার্ডিচ বলেন, ‘আমরা সদস্য দেশগুলোর সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি। যাতে করে পূনরায় সূচি নির্ধারণ করা সহজ হয়ে যায়। ইংলিশ সামারে টেস্ট সিরিজের সঙ্গে তাদের ঘরোয়া ক্রিকেটও চলবে। এরপর সমস্যা হচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার সিরিজের সূচি নির্ধারণ। এটা নিয়ে মিডিয়ায়ও লেখালেখি হচ্ছে। এছাড়া বাকিগুলো ঠিক করতে হয়তো আমাদের সমস্যা হবে না।’

ক্রিকইনফোকে দেয়া সাক্ষাৎকারে অ্যালার্ডিচ বলেন, ‘আমাদের আলোচনায় বেশ অগ্রগতি রয়েছে এবং প্রতিটি সদস্য দেশের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় সব আপডেট নিচ্ছি। এই মুহূর্তে সবই সঠিকভাবে চলছে। ইংল্যান্ডে যে সিরিজ অনুষ্ঠিত হচ্ছে, সেগুলোও টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অধীন।’