গার্মেন্টস শ্রমিকদের ঈদ বোনাস ২৭ জুলাই ও চলতি মাসের বেতনের অর্ধেক ৩০ তারিখের মধ্যে পরিশোধ করার নির্দেশনা দিয়েছিল শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। কিন্তু নির্ধারিত সময়ের দুইদিন পর অর্থ্যাৎ ২৯ জুলাই পর্যন্ত বোনাস পাননি ২২৯টি পোশাক কাখানার শ্রমিক।

বুধবার বিকেলে এ তথ্য জানিয়েছে তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ) ।

বিজিএমইএ বলছে, সংগঠনটির সদস্যভুক্ত ১৮৯৮টি পোশাক কারখানার মধ্যে শ্রমিকদের বোনাস দিয়েছে ১৬৬৯টি কারখানা। অর্থাৎ এখনও ১২ শতাংশ কারখানা বোনাস পরিশোধ করেনি।

অঞ্চল ভিত্তিক বিভাজনে দেখা যায়, ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় অবস্থিত ৩২২টি কারখানার মধ্যে বোনাস পরিশোধ করেনি ৫৬টি কারখানা। গাজীপুরের ৭১৩টির মধ্যে এখনও বাকি রয়েছে ৭১টি কারখানার বোনাস, সাভার-আশুলিয়া এলাকার ৪১টি কারখানার শ্রমিকরা পাননি তাদের ঈদ বোনাস। নারায়ণগঞ্জের ১৯৫টি কারখানার মধ্যে বোনাস পাননি ২০টি কারখানার শ্রমিক, চট্টগ্রামের ২৩২টি মধ্যে বোনাস দেয়া হয়নি ৩৭টি কারখানার আর অন্যান্য এলাকার ১৮টি কারখানার মধ্যে বোনাস দেয়নি ৪টি কারখানা।

এসব কারখানা তাদের শ্রমিকদের বোনাস পরিশোধের প্রক্রিয়াধীন বলে জানিয়েছে বিজিএমইএ।

এর আগে গত ২০ জুলাই রাজধানীর বিজয়নগরে শ্রম ভবনে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে শ্রমিকদের বেতন-বোনাস নিয়ে সরকার, মালিক-শ্রমিক ত্রিপক্ষীয় পরামর্শ পরিষদের (টিসিসি) ৬৫তম সভা শেষে পোশাক কারখানার শ্রমিকদের ঈদ বোনাস ২৭ জুলাইয়ের মধ্যে পরিশোধ করার কথা জানান শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান। এছাড়া চলতি মাসের অর্ধেক বেতন ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে পরিশোধ করার কথা বলা হয়।