বাঙালির খাবারের পাতে পটলের কদর সব সময়ই। ইলিশ-পটলের ঝোল একটি জনপ্রিয় খাবার। পটলের দোলমা, পটলের কারি কিংবা পটল ভাজা- প্রত্যেকটিই সুস্বাদু। পটল শুধু স্বাদেই চমৎকার নয়, এর গুণও রয়েছে ভুড়িভুড়ি! এতে আছে প্রচুর ভিটামিন এ, ভিটামিন বি ১, ভিটামিন বি ২ ও ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট! তাই নিয়মিত পটল খেলে সুস্থতা অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যায়। এমনটাই প্রকাশ করেছে নিউজ এইটিন।

Potol-3

যারা ওজন কমাতে চাচ্ছেন, তাদের জন্য সহায়ক হতে পারে পটল। পটলে খুব কম ক্যালরি রয়েছে। অথচ, পেট ভর্তি রাখে। কাজেই ওজন কমাতে পটলের বিকল্প মেলা ভার!

Potol-3

পটল ভিটামিন এ, ভিটামিন সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট-এ ভরপুর। কাজেই ত্বকের জন্যও উপকারি! ফ্রি র্যাডিকেলের বিস্তার রোধ করে ত্বকে বয়সের ছাপ পড়তে দেয় না।

Potol-3

পটল রক্ত পরিশোধিত করে। কোলেস্টেরল ও ব্লাড সুগার কমায়। আয়ুর্বেদ চিকিৎসায় ঠান্ডা, জ্বর ও গলা ব্যথায় পটল খেতে বলা হয়।

Potol-3

পটলে পর্যাপ্ত পরিমাণে ফাইবার রয়েছে যা খাবার হজম করতে সাহায্য করে। এছাড়াও, গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল ও লিভারেরসমস্যা সমাধানে এক্সপার্ট! পাশাপাশি পটলের বীজ কোষ্ঠকাঠিন্য কমায়। পটল ও ধনেপাতা থেঁতলে পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এই মিশ্রণটিকে ৩ ভাগ করে এর সঙ্গে মধু মিশিয়ে দিনে ৩ বার খান। হজমের সমস্যা কাছে ঘেঁষবে না!

Potol-5

মাথাব্যথার সমস্যায় কাজে লাগাতে পারেন এই পটল। কীভাবে? পটলের রস করে মাথায় লাগান। মাথাব্যথা দূর হবে দ্রুতই।

পটলের পাতার রস ক্ষত নিরাময়ে সাহায্য করে এবং টাকের সমস্যা সমাধানেও কাজে লাগে।