আশুলিয়া প্রতিনিধি : আশুলিয়ায় চাঁদাবাজির অভিযোগে সোহাগ (২৬) নামে এক যুবলীগ কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সে এলাকায় চাঁদাবাজি করে আসছিলো।

বৃহস্পতিবার (০৯ জুলাই) সকালে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক সুদীপ কুমার দাস। এরআগে বুধবার রাতে তাকে আশুলিয়ার বাগাবাড়ি এলাকার চারালপাড়া থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেফতারকৃত সোহাগ দক্ষিণ বাইপাইলের চারালপাড়া এলাকার মো. হুরমুজ আলীর ছেলে।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ওই এলাকায় রাকিব শেখ নামে এক রিকশা গ্যারেজ ব্যবসায়ীর কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন সোহাগ। একই সঙ্গে তার গ্যারেজে যত রিকশা থাকবে প্রতিটি রিকশার বিপরীতে প্রতিদিন ৩০ টাকা করে চাঁদা দাবি করেন।

গত ৬ জুলাই চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে মারধরের শিকার হন রাকিব। এরপরেও নানাভাবে হুমকি দিতে থাকলে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন রাকিব।

এ বিষয়ে আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহবায়ক কবির সরকার জানান, সোহাগ কখনোই যুবলীগের নেতা বা সদস্য ছিলো না। কোন কমিটিতেই তার নাম নেই।

তবে এলাকাবাসী জানায়, সোহাগ নিজেকে আশুলিয়া থানা যুবলীগ সদস্য হিসেবে নিজেকে পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন অপকর্ম চালিয়ে আসছিলো। সে স্থানীয় যুবলীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে কাজ করতো। এছাড়া তাকে যুবলীগের বিভিন্ন কর্মকান্ডে দেখা গেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সে সব ছবি দেখা যাচ্ছে।

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক সুদীপ কুমার দাস জানান, চাঁদাবাজির অভিযোগে সোহাগকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় সোহাগসহ অজ্ঞাত নাম ৬ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এই মামলায় দুপুরে সোহাগকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। সোহাগের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, ধর্ষন, সন্ত্রাসী ও নারী নির্যাতনসহ একাধিক মামলা রয়েছে।