স্টাফ রিপোর্টার : বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক যুবতীর সঙ্গে প্রথমে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে সাজ্জাদ হোসেন সজল (২১) নামের এক যুবক। এ ঘটনায় ঐ অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বিয়ের জন্য চাপ দেন নারী (২৫)। কিন্তু বিয়ে না করে তাকে মারধর করেন তার প্রেমিক সাজ্জাদ। সেইসঙ্গে ওই নারীর চুলও কেটে দেয় ওই যুবক। ঘটনাটি ঘটেছে সাভার পৌর এলাকার ব্যাংক কলোনী মহল্লায়।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত সাজ্জাদ হোসেন সজল নামের ওই মুদি দোকানদারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শনিবার (৪-৭-২০২০) সকালে  ব্যাংক কলোনী এলাকায় অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে সজলকে আটক করে পুলিশ। আটক সজল ওই এলাকার বাদশা মিয়ার ছেলে।

পুলিশ জানায়, গত কয়েক মাস ধরে ব্যাংক কলোনী এলাকার এক নারীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করে আসছিলো তার প্রতিবেশী মুদি দোকানদার সাজ্জাদ হোসেন সজল। পরে ওই নারী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে সাজ্জাদ হোসেন সজলকে বিয়ের জন্য চাপ দেয়। কিন্তু বিয়ে না করে সজল ওই নারীকে মারধর করে বিষয়টি কাউকে জানালে তাকে হত্যা করে গুম করার হুমকি দেয়। সেই সঙ্গে ওই নারীর মাথার চুল কেটে দিয়ে তাকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করেন সজল।

পরে ওই নারী শুক্রবার রাতে সাভার মডেল থানায় উপস্থিত হয়ে ওই মুদি দোকানদারকে প্রধান আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় শনিবার সকালে পুলিশ ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে সজলকে গ্রেপ্তার করে।

সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) অপূর্ব দাস বলেন, ‘গ্রেপ্তার সাজ্জাদ হোসেন সজলকে আদালতে পাঠানো হবে। ভুক্তভোগী নারীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য শনিবার সকালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টফ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।