পাকিস্তান দলের খেলোয়াড়দের অনেকের ইংরেজি জ্ঞান নিয়ে ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ হয়। তবে ভালো খেলোয়াড় হতে হলেই যে ভালো ইংরেজি জানতে হবে, এমন নয়। কিন্তু খেলোয়াড়রা যা-ই করেন, একটি দেশের ক্রিকেট বোর্ড নিশ্চয়ই তাদের কাজে দায়িত্বজ্ঞানহীনতা ও অসচেতনতার পরিচয় দিতে পারে না।

যেমনটা দিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ এক পোস্টে নিজেদের দেশের নামই ভুল লিখে ফেলেছিল তারা। পরে সেটা শুধরে নিলেও যারা স্ক্রিনশট রাখার রেখে দিয়েছেন, আর তা নিয়েই চলছে ট্রল।

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে রোববারই দেশ ছাড়ে পাকিস্তান ক্রিকেট দল। তার আগে এক চোট হাসির খোরাক জুগিয়ে ফেলেছে পিসিবি। খেলোয়াড়দের করোনা টেস্ট করিয়ে ১০ জনকে পজিটিভ পাওয়ার পর হয়েছে অনেক নাটক। মোহাম্মদ হাফিজের মতো কেউ কেউ ব্যক্তিগতভাবে টেস্ট করিয়ে বোর্ডকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলে দিয়েছেন।

পরে আবার তাদের করোনা টেস্ট করে আরেক নাটক। হাফিজের বিষয়টিই ধরা যাক। প্রথমে তাকে করোনা পজিটিভ ঘোষণা করে পিসিবি। পরে হাফিজ নিজ উদ্যোগে টেস্ট করিয়ে নেগেটিভ হন। পরে দ্বিতীয় দফায় পিসিবি তাকে করোনা পজিটিভ প্রমাণ করে। এরপর আবার তারাই বলে পরীক্ষায় এসেছে নেগেটিভ। সে এক বিতিকিচ্ছিরি অবস্থা!

এর মধ্যে করোনা পজিটিভ ক্রিকেটারদের রেখে ইংল্যান্ডের পথে রওয়ানা দেন বাবর আজম, আজহার আলি, ইমাম-উল-হকেরা। সফরে যাওয়ার পথে পিসিবি তাদের শুভকামনা জানিয়ে একটি পোস্ট করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। সেখানে ইংরেজিতে ‘পাকিস্তান’ বানানই ভুল লেখা হয়।