ভূমিষ্ঠের পর একজন নবজাতকের করোনা সংক্রমণের সম্ভাবনা আছে কি না- এই নিয়ে দ্বিধায় রয়েছেন অনেকেই। তবে বিষয়টি পরিষ্কার করলেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডাক্তার নাসিমা সুলতানা।

তিনি বলেছেন, ‘করোনা আক্রান্ত মায়ের কাছ থেকে গর্ভস্থ শিশুর আক্রান্ত হওয়ার কোনো তথ্য এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। তবে ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর নবজাতকের সংক্রমণ হওয়ার সম্ভাবনা আছে। তাই নবজাতকের সুরক্ষায় সর্বোচ্চ সর্তকতা অবলম্বন করতে হবে।’

সোমবার (২৯ জুন) স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাভাইরাস বিষয়ক নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘সাবান পানি দিয়ে ভালোভাবে হাত ধুয়ে নবজাতকের জন্মের এক ঘণ্টার মধ্যে অবশ্যই মায়ের দুধ খাওয়াতে হবে। কারণ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে- মায়ের দুধের মাধ্যমে কোনো ভাইরাস সংক্রমিত হয় না। বুকের দুধ খাওয়ানো এবং নবজাতকের ত্বক স্পর্শ করার সময় মায়েদের মাস্ক পরিধান করতে হবে। দেশের সকল ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, সদর হাসপাতালে অনূর্ধ্ব ৫ বছরের শিশুদের আইএমসিআই ও পুষ্টিবিষয়ক সেবাসমূহ যথারীতি চলমান আছে।’

তিনি গর্ভবতী মায়েদের প্রতি বিশেষ যত্ন রাখার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘পরিবারের সকল সদস্যদের সচেষ্ট থাকতে হবে, যেন গর্ভবতী মায়েরা সংক্রমিত না হন। বাইরে গেলে অবশ্যই মাস্ক পরবেন। বারবার সাবান-পানি দিয়ে ২০ সেকেন্ড ধরে হাত ধৌত করবেন। জনসমাবেশ এড়িয়ে চলবেন এবং কমপক্ষে তিন ফুট দূরত্ব বজায় রেখে চলবেন। গর্ভবতী মা খুবই সংবেদনশীল একটি গ্রুপ যার ওপর নির্ভর করছে ভবিষ্যৎ একটি প্রজন্ম। তাই সকলে গর্ভবতী মায়েদের স্বাস্থ্যসেবার প্রতি বিশেষভাবে খেয়াল রাখবেন। হাসপাতালে যখন তাদের পরীক্ষা করার সময় তখন নিয়মিতভাবে তাদের চেকআপে ব্যবস্থা এবং স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রগুলোতে তাদেরকে নিয়ে যেতে হবে। যারা পরিবারের সদস্য রয়েছেন, তারা বিষয়টি বিশেষভাবে খেয়াল রাখবেন।’