কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি : গাজীপুরের কালিয়াকৈরে দোকান ভাড়ার পাওনা টাকা চাওয়ায় উপজেলার আটাবহ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান হাজী মোঃ শামসুল হক (৭০) কে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এ ঘটনায় চেয়ারম্যানের ছেলে মিতুল বাদী হয়ে কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগকারী ও তার পরিবার জানান, ট্রাকস্ট্যান্ডস্থ কালিয়াকৈর পল্লীবিদ্যুৎ অফিস সংলগ্ন শাহীন স্কুলের মেইন গেইটের সামনে চেয়ারম্যান শামসুল হকের একটি দোকান ঘর মোয়াজ্জেম হোসেনের ছেলে মোঃ সাখাওয়াত হোসেন (৪০) প্রায় চার বছর যাবত ভাড়া নিয়ে তার ব্যবসা চালিয়ে আসছে। দোকান ঘরের ভাড়া বাবদ প্রতিমাসে ১৫০০ টাকা করে দেওয়ার কথা। কন্তিু সাখাওয়াত হোসেনের নিকট চেয়ারম্যান ৮ মাসের ভাড়া বাবদ মোট ১২০০০ টাকা পাওনা হয়। সাখাওয়াত পাওনা টাকা দিতে না চাইলে চেয়ারম্যান তাকে দোকান ভাড়া দেবে না বলে দোকান ঘর খুলতে নিষেধ করেন।

এ অবস্থায় গত রোববার (২৭ জুন) আনুমানিক বিকাল ৫:৩০টারদকিে সাখাওয়াত চেয়ারম্যানকে ফোন করে তার লতিফপুরের বাসা থেকে বাহিরে নিয়ে দোকান খোলার ব্যাপারে কথা বললে চেয়ারম্যান সাখাওয়াতকে বলে যে, গত আট মাসের ভাড়া আমাকে দিতে হবে না আমি দোকান আর তোমাকে ভাড়া দিব না।

একথা শুনে ভাড়াটিয়া সাখাওয়াত চেয়ারম্যানের ওপর চড়াও হয়ে দুইপক্ষ বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে। এ অবস্থায় সাখাওয়াতের সাথে মৃত কালু মিয়ার ছেলে মোঃ কামাল উদ্দিন (৪৭) ড্রাইভার নামক এক ব্যক্তিসহ আরো কয়েকজন চেয়ারম্যানের উপর হামলা চালিয়ে এলোপাতাড়িভাবে মারপিট করে জখম করেন। সাখাওয়াত হোসেনের বাড়ি উপজেলার ঢালজোড়া ইউনিয়নে। কিন্তু তিনি এবং কামাল ড্রাইভার বর্তমানে কালিয়াকৈর পৌর এলাকায় বসবাস করেন।

সাবেক এই চেয়ারম্যান আরো বলেন, ঘটনার সময় তার পাঞ্জাবির পকেটে ৫০,০০০ টাকা। ছিল সেই টাকাও বিবাদী সাখাওয়াত ও তার সাথে থাকা লোকজন ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে বিবাদী সাখাওয়াতের সাথে যোগাযোগ না করতে পেরে অপর বিবাদী কামালউদ্দিন এর সাথে কথা বলে জানা যায়, দোকান ভাড়ার ব্যাপারে চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলতে গেলে এক পর্যায়ে চেয়ারম্যান আমাদের ওপর মারমুখী আচরণ করে। অতঃপর ঘটনার জের ধরে এক সময় দু’পক্ষ হাতাহাতির ঘটনায় জড়িয়ে পড়ি।

কালিয়াকৈর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আনিসুল হক বলেন, এ ব্যাপারে একটি অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।