ধামরাই প্রতিনিধি : ধামরাইয়ের একটি আঞ্চলিক সড়কে পিকআপ ভ্যানের গতিরোধ করে মন্তোষ সাহা নামে এক ব্যবসায়ীর সাত লাখ টাকা ছিনতাই করা হয় বৃহস্পতিবার বিকেলে। এ ঘটনায় মালিকের ৩ কর্মচারীসহ একই গ্রামের ৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ। আটকদের কাছ থেকে ২ লাখ ৬২ হাজার টাকা ও ছিনতাইকাজে ব্যবহৃত একটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আটকরা হলেন, ব্যবসায়ী মন্তোষ সাহার পিকআপ চালক সাটুরিয়া রাধানগর গ্রামের আকাশ মিয়া, কর্মচারী কোরবান আলী ও হাবিবুর রহমান, শরিফ হোসেন, নুরুল ইসলাম, গোলক সূত্রধর।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আটক আকাশ মিয়া ব্যবসায়ী মন্তোষ সাহার পিকআপের চালক। সে প্রায় দেড় বছর যাবত ওই ব্যবসায়ীর পিকআপ চালিয়ে আসছেন। আকাশের পরিকল্পনাতে বৃহস্পতিবার বিকেলে কালামপুর-সাটুরিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কের জালসা বাসষ্ট্যান্ডের কাছে পৌছলে পিকআপটিকে একটি মাইক্রোবাস ও দুটি মোটর সাইকেল দিয়ে ব্যারিকেড দেয়। পরে চালকের পরিকল্পনায় মোতাবেক ছিনতাইকারীরা ব্যবসায়ী মন্তোষ সাহাকে পিকআপ থেকে নামিয়ে নিজেদের মাইক্রোতে তুলে নেন। এরপর চালক আকাশ ও মন্তোষ সাহার কর্মচারী হাবিব ও কোরবান আলীকে মারপিট করে। এরপর পিকআপের ভিতরে একটি ব্যাগে রাখা সাত লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয়। পরে ব্যবসায়ী মন্তোষ সাহাকে প্রায় দুই কিলোমিটার দুরে নিয়ে নামিয়ে দেন তারা।

এ ঘটনার পর রাতে মন্তোষ সাহা কাওয়ালীপাড়া বাজার তদন্ত কেন্দ্রে গিয়ে বিস্তারিত ঘটনা জানান। এ প্রেক্ষিতে ওই রাতেই কাওয়ালীপাড়া বাজার তদন্ত কেন্দ্রের ইনচাজ পরিদর্শক রাসেল হোসেন চালক আকাশকে আটক করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আকাশ স্বীকার করে নিজেদের পরিকল্পনায় মালিকের টাকা ছিনতাই করা হয়। আকাশ জানায়, তিনকর্মচারী ছাড়া ছিনতাইয়ে অংশ নেন সাতজন।

ধামরাই থানার অফিসার ইনচার্জ দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, কর্মচারীদের পরিকল্পনায় ব্যবসায়ী মন্তোষ সাহার সাত লাখ টাকা ছিনতাই করে। ছয়জন আটক করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে ছিনতাইয়ের দুই লাখ ৬২ হাজার টাকা ও একটি মোটর সাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে। অন্য আসামীদের আটকে অভিযান অব্যাহত আছে।

মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়া উপজেলার বালিয়াটি গ্রামের শৈলেন্দ্র কুমার সাহার ছেলে মন্তোষ সাহা সাটুরিয়া বাজারে ব্যবসা করে আসছেন। তিনি জর্দ্দা ও কয়েলসহ বিভিন্ন ধরনের মালামাল সাভারে পাইকারী দরে বিক্রি করে সাত লাখ টাকা নিয়ে তার নিজস্ব পিকআপ ভ্যানে সাটুরিয়া ফিরছিলেন বৃহস্পতিবার বিকেলে।