কেরানীগঞ্জের কদমতলী এলাকায় ট্রাক ও বাস থেকে চাঁদা তোলার সময় হাতেনাতে ধরা পড়েছেন এক যুবলীগ নেতা। ওই যুবলীগ নেতার নাম ফরিদ আলী। ৫ জুন, শুক্রবার রাতে তাকে আটক করে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে কেরানীগঞ্জ মডেল থানা ও দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় ১১টি মামলা রয়েছে বলেও দাবি এলাকাবাসীর।

এ ঘটনায় ৬ জুন, শনিবার সকালে ফরিদ আলী বিরুদ্ধে পুলিশ ও ট্রাক মালিক সমিতির পক্ষ থেকে তিনটি মামলা করা হয়। দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ জামান এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

এ বিষয়ে ওসি শাহ জামান জানান, ফরিদ আলী দীর্ঘদিন ধরে কেরানীগঞ্জের ডাকপাড়া ট্রাকস্ট্যান্ড এবং কদমতলী এলাকায় বাস ও ট্রাক থেকে প্রতিদিন চাঁদা তুলে আসছিলেন। শুক্রবার রাতে চাঁদা তোলার সময় তাকে হাতেনাতে আটক করা হয়।

কদমতলী ও ডাকপাড়ার চালকরা অভিযোগ করেন, ফরিদ ২০-২৫ জন যুবলীগের সদস্য নিয়ে ভয় দেখিয়ে প্রায় প্রতিদিন ট্রাক, বাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশা থেকে চাঁদা তুলে আসছিলেন।

ফরিদ আটক হাওয়ার কারণে শনিবার কদমতলী ও ডাকপাড়া এলাকার গাড়িচালকরা আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতারণ করেছেন।