কুষ্টিয়ায় ২৪ ঘন্টা আগে যে ব্যক্তি করোনা আক্রান্তদের বাড়ি বাড়ি প্রধান মন্ত্রীর দেয়া খাদ্র সামগ্রী নিজ হাতে পৌছে দিয়েছেন সেই ব্যক্তি আজ করোনা পরিক্ষায় পজেটিভ হয়েছে। তিনি হলেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মো. আসলাম হোসেন। করোনা প্রতিরোধ যুদ্ধে কুষ্টিয়ার অগ্র নায়ক জেলা প্রশাসক প্রতিদিনই সরকারের বিভিন্ন কর্মসুচী বাস্তবায়নে নিজেকে উজাড় করে দিয়ে কুষ্টিয়াবাসীর মন জয় করে নিয়েছিলেন।

শুক্রবার কুষ্টিয়া মেডিক্যাল কলেজের পিসিতে ১১১জন করোনা টেষ্টে ৭জনের পজিটিভ হয়। এদিকে জেলা প্রশাসক শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে জ্বর ও সর্দি দেখা দিলে তিনি শনিবার সকালে করোনা টেষ্ট দেন। শনিবার বিকেলে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক করোনা আক্রান্ত হন বিষয়টি সিভিল সার্জন ডা. আনোয়ারুল ইসলাম নিশ্চিত করেছেন।।

শনিবার বিকেলে জেলা প্রশাসকের করোনা আক্রান্তের খবরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জেলা প্রশাসকের আশু করোনা মুক্তি কামনায় আল্লাহর কাছে দোয়া কামনা করেছেন বিভিন্ন শেণী পেশার মানুষেরা। তাকে করোনা প্রতিরোধ যুদ্ধের অগ্রনায়ক হিসেবে সকলেই উল্লেখ করেছেন। করোনা প্রতিরোধের শুরু থেকেই কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক নিরবিচ্ছিন্নভাবে প্রশাসনের অন্যদের সহযোগিতায় কাজ করে যাচ্ছেন।

শুক্রবার বিকেলে জেলা প্রশাসক মো. আসলাম হোসেন নিজে জেলায় করোনা আক্রান্তদের বাড়ি বাড়ি যেয়ে ৩০আইটেমের খাদ্র সামগ্রীর বিশালাকার ঝুড়ি পৌছে দেন এবং করোনা পরবর্তি যে কোন সহযোগিতার আশ্বাস দেন সেই সাথে করোনা মোকাবিলায় সকলকে সচেতনতা সেই সাথে সরকারী নির্দেশ মেনে চলার আহবান জানান।

জেলা প্রশাসকের করোনা আক্রান্তের খবরে কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার বলেছেন, আমার সহযোদ্ধা ও প্রিয়জন কুষ্টিয়ার সুযোগ্য জেলা প্রশাসক মো, আসলাম হোসেন করোনা পজিটিভ হয়েছেন। দোয়া করি দ্রুত সুস্থ হয়ে আমাদের মাঝে ফিরে আসুন। আল্লাহ সর্বদা ভাল মানুষের পাশে থাকেন। নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সাদাত হোসেন জানান, ডিসি স্যার হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন এবং সুস্থ আছেন। ডিসি স্যারের সাথে সার্বক্ষনিক যারা থাকেন তাদের আজ ৭ জুন পিসি ল্যাবে করোনা টেষ্ট হবে। তবে তার আগে জেলা প্রশাসক অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।