রংপুরে চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়ে বাড়ির মালিক আসাদুল হক (৬০) নামে রংপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের এক আইনজীবীকে গলাকেটে হত্যা করেছে এক চোর।

শুক্রবার (০৫ জুন) বেলা দেড়টার দিকে নগরীর ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের ধর্মদাস বারো আউলিয়া এলাকার নিজ বাড়ি থেকে ওই আইনজীবীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় রতন (২৬) নামে প্রতিবেশি একজনকে আটক করেছে তাজহাট থানা পুলিশ। আটক রতন ওই এলাকার মৃত জাফর আলীর ছেলে।

পুলিশ জানায়, মৃত আইনজীবীর দুই মেয়ে। বড় মেয়ে অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী। করোনা পরিস্থিতির কারণে ছোট মেয়েকে নিয়ে স্ত্রী গ্রামের বাড়ি মিঠাপুকুর উপজেলার বালুয়া ছড়ান এলাকায় রয়েছেন।ধর্মদাসের ওই বাড়িতে আসাদুল হক একা থাকতেন।

শুক্রবার বেলা দেড়টার দিকে চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়েন রতন। ধরা পড়লে দুইজনের মাঝে ধস্তাধস্তি হয়। এক পর্যায়ে আসাদুল হকের গলায় এবং পেটে ছুরিকাঘাত করে দেয়াল টপকে পালিয়ে যাওয়ায় সময় স্থানীয়রা রতনকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়।

খবর পেয়ে তাজহাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আইনজীবীর মরদেহ উদ্ধার করে। রতন মাদকাসক্ত এবং এর আগেও রতন ওই বাড়িতে চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়েছে বলে স্থানীয়রা জানান।

তাজহাট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ রোকনুজ্জামানআটকবলেন, রতন নামে একজনকে আটক করা হয়েছে‌। কি কারণে এ হত্যাকাণ্ড এবং ঘটনার সঙ্গে আরও কেউ জড়িত আছে কি না তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।