বর্তমান পরিবেশ-পরিস্থিতিতে জনজীবন থমকে আছে। সাধারণ ছুটি উঠিয়ে নেয়া হলেও, কোনকিছু এখনও স্বাভাবিক নয়। বরং মৃত্যু ঝুঁকি বেড়েছে অনেক। প্রতিদিন আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এমতাবস্থায় সবাই নিজ নিজ অবস্থানে থেকে স্রষ্টাকে ডাকছেন, তার দয়া-কৃপার দিকে তাকিয়ে গোটা দেশ।

সারাদিনই এক অজানা শঙ্কায় কাটছে। বিনোদন হারিয়ে গেছে। মানুষ প্রাণ খুলে হাসতেও ভুলে গেছে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই দেশের প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ কবে শুরু হবে?- তা নিয়ে ভাবার লোকও গেছে কমে। শুধু প্রিমিয়ার লিগ সংশ্লিষ্ট মানুষেরাই এমন প্রেক্ষাপটেও ক্রিকেট লিগ শুরুর দিনক্ষণ নিয়ে ভাবছেন।

তবে ঘরোয়া ক্রিকেট তথা প্রিমিয়ার লিগ আবার কবে শুরু হবে? এখন তা বলা অসম্ভব। এক-দুই মাসের ভেতরে হবে না, তা ধরে নেয়াই যেতে পারে।

ধরে নেয়া যাক, জুলাই কিংবা আগস্টের প্রথম অংশে করোনার তীব্রতা কমে একটা মোটামুটি স্থিতিশীল অবস্থা তৈরি হলো। কিন্তু তখন কি প্রিমিয়ার লিগ আয়োজন সম্ভব? মানে আগস্টে মাঝামাঝি সময়ে কি ক্রিকেট ম্যাচ চালানো যাবে? জাগো নিউজের পাঠকরা জেনে গেছেন, শুধু করোনাই নয়, বৃষ্টিও প্রিমিয়ার লিগ মাঠে গড়ানোর পেছনে বড় বাধা। কারণ জুনের মাঝামাঝি থেকে শুরু হবে বর্ষকাল। চলবে অন্তত আগস্ট-সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

তাই যদি হয় তাহলে ঐ সময় লিগ আয়োজন কি সম্ভব? তা নিয়ে সংশয় থেকেই যাচ্ছে। এদিকে লিগ যদি এ বছর না হয়, তাহলে শুধু ২০২০ সালের লিগই বাতিল হবে না, আরও একটি বড় ধরনের সমস্যার উদ্রেক ঘটবে। একটি নিয়মের ব্যতিক্রম ঘটবে।

সবার জানা, প্রিমিয়ার লিগে খেলে ১২টি দল। প্রতি বছর প্রথম বিভাগের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দল দুইটি উন্নীত হয়ে প্রিমিয়ারে ওঠে। আর প্রিমিয়ার লিগের ১১ ও ১২ নম্বর দল রেলিগেটেড হয়ে প্রথম বিভাগে অবনমিত হয়ে যায়।

নেমে যাওয়া দুই দলের জায়গায়ই আসে প্রিমিয়ারে উন্নীত দুই দল। এবার লিগ না হলে সে নিয়মের ব্যত্যয় ঘটবে। কারণ প্রিমিয়ার লিগ থেমে গেলেও প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় বিভাগ লিগ হয়ে শেষ হয়ে গেছে। প্রথম বিভাগের দুই দল প্রিমিয়ার লিগে ওঠার বন্দোবস্তও করে ফেলেছে।

এখন প্রিমিয়ার লিগ যদি শেষপর্যন্ত এ বছর না হয়, তাহলে কী হবে? যারা প্রথম বিভাগের চ্যাম্পিয়ন-রানার্সআপ হয়ে প্রিমিয়ারে উঠে এসেছে, তাদের তো আগামী বছর প্রিমিয়ার লিগ খেলতে দিতে হবে। কিন্তু এবছর প্রিমিয়ার লিগ না হলে দুই দল রেলিগেটেড হওয়ারও কোন সুযোগ নেই। তখন কী হবে?

তাহলে আগামী বছরের লিগে তো এখনকার ১২ ক্লাব থাকবেই, সঙ্গে প্রথম বিভাগ থেকে উঠে আসা নতুন দুই দলও যোগ হবে। সেক্ষেত্রে ১৪ দলকে খেলতে দিতে হবে। প্রিমিয়ারের দীর্ঘদিনের ধারা ও নিয়ম যে ১২ দলের লিগ, তার ব্যত্যয় ঘটবে। সেটা পোষানোও হবে আরেক ঝামেলা।

কারণ পরে ১৪ দলের লিগ থেকে দুই দল রেলিগেটেড হয়ে প্রথম বিভাগে নামলেও তো আবার ১২ দলই থেকে যাবে প্রিমিয়ার লিগে। তাহলে পরের বছর প্রথম বিভাগ যে দুই দল উঠে আসবে তাদের কী হবে? তখন তো আবার ১৪ দলই হয়ে যাবে প্রিমিয়ার।

প্রথম বিভাগ থেকে উঠে আসা দলের প্রিমিয়ার লিগ খেলার নিয়ম ও রীতি নিশ্চয়ই ভাঙা হবে না? আর তা বহাল রাখলেও হবে মহা সমস্যা! তখন তো পরের বছর আবার ১৪ দলের প্রিমিয়ার লিগ করতে হবে। কাজেই একটি বছর মানে এবার প্রিমিয়ার লিগ না হলে প্রক্রিয়াই নষ্ট হয়ে যাবে। তাতে সৃষ্টি হবে নতুন সমস্যা। যার সমাধান করা কঠিন হয়ে পড়বে।