ধামরাই প্রতিনিধি : ধামরাইয়ে চাচাতো ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে ইমন হোসেন নামে এক স্কুল ছাত্র খুন হয়েছে। ইমন (১৭) এ বছর জয়পুরা এসেড স্কুল থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে। সে কুল্লা ইউনিয়নের কেলিয়া গ্রামের সিদ্দিকুর রহমান ঘটার ছেলে। আজ মঙ্গলবার সকালে নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ, এলাকাবাসী ও নিহতের স্বজনদের কাছ থেকে জানা গেছে, গত কয়েকদিন আগে বিরোধপূর্ণ জমি থেকে কে বা কারা কলা কেটে নেয়। এনিয়ে মঙ্গলবার সকালে হুমায়ূন আহমদের ছেলে মাদকাসক্ত আবদুস সাত্তার (৩০) তার চাচি শিল্পী বেগমকে গালমন্দ করতে থাকে। এসময় শিল্পী বেগমের ছেলে ইমন হোসেন চাচাতো ভাই সাত্তারকে গালমন্দ করতে বারন করে। এতে সাত্তার ক্ষীপ্ত হয়ে ইমনের বুকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। এসময় ইমনকে উদ্ধার করে সাভারের এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আধা ঘন্টা পর ইমন মারা যায়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ঢাকার শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে।

আরও পড়ুন >> ধামরাইয়ে স্বামী বেকার হয়ে যাওয়ায় অভাবে সন্তানসহ স্ত্রী’র আত্মহত্যার চেষ্টা

অভিযুক্ত সাত্তারের স্ত্রী সুফিয়া বেগম জানায়, তার স্বামী মাদক সেবন করে তাকেও মারধর করতো।

ধামরাই থানার অফিসার ইনচার্জ দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, হত্যার ঘটনায় মামলা দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে। সাত্তারকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে। ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। তিনি জানান, প্রায় সাত বছর আগে একটি মেয়েকে উত্ত্যক্ত করার ঘটনায় চারমাস জেল খেটেছে এই সাত্তার।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আবদুল মালেক জানান, কেলিয়া গ্রামের নিহত দুদু ডাকাতের ছেলে ইয়াবা বিক্রেতা রবিন এলাকার প্রায় একশত যুবককে মাদকাসক্ত করে যুব সমাজকে বিপথগামী করেছে। সাত্তারও রবিনের শিষ্য বলে জানান তিনি।