একই গ্রুপে জার্মানি, ফ্রান্স আর পর্তুগাল। সঙ্গে প্লে-অফ পার করে আসা এক দল। চার দলের মধ্যে দ্বিতীয়পর্বে যেতে পারবে মাত্র দুইটি। বড় তিন দলের মধ্যে এক দলের বিদায় তাই নিশ্চিত। ২০২০ ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের ড্র এমনই কঠিন সমীকরণে ফেলে দিয়েছে ‘এফ’ গ্রুপের দলগুলোকে।

আগামী বছরের ১২ জুন থেকে শুরু হবে ইউরোর ১৬তম আসর। প্রায় এক মাসব্যাপী এ টুর্নামেন্টের পর্দা নামবে ১২ জুলাই, জার্মানির ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামের ফাইনাল দিয়ে।

গ্রুপ পর্বেই দেখা মিলবে টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন, বর্তমান রানারআপ ও টুর্নামেন্টের সবচেয়ে সফল তিন দলের। সঙ্গে প্লে-অফ পার করে আসবে আইসল্যান্ড, রোমানিয়া, বুলগেরিয়া আর হাঙ্গেরি। যেটিকে ধরা হচ্ছে আসরের গ্রুপ অব ডেথ বা ‘মৃত্যুকূপ’।

অথচ এমন এক গ্রুপে পড়েও চিন্তায় মরে যাচ্ছেন না জার্মানির কোচ জোয়াকিম লো। বরং রোমাঞ্চকর লড়াইয়ের আভাস পাচ্ছেন তিনি। বিশেষ করে ফ্রান্স আর পর্তুগালের মুখোমুখি হওয়ার বিষয়টিকে বেশ আনন্দেরই মনে করছেন লো।

জার্মান কোচের ভাষায়, ‘প্রথমত আমার খুব আনন্দ লাগছে, কারণ ফ্রান্স আর পর্তুগালের সঙ্গে ম্যাচটি একদম আলাদা হবে। আমরা বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন আর ইউরোর বর্তমান চ্যাম্পিয়নের বিপক্ষে খেলব।’

তাহলে কি এই গ্রুপটা সহজ? না, লো-ও মানছেন, এটা মৃত্যুকূপ। কিন্তু বড় দলগুলো আছে বলেই এই গ্রুপের ম্যাচগুলো উৎসবের মতো হবে বলেই মনে করছেন জোয়াকিম লো।

জার্মানির এই কোচ বলেন, ‘আমার মনে হয়, খেলোয়াড়রাও এই ম্যাচটি খেলতে মুখিয়ে আছে। এটা অবশ্যই গ্রুপ অব ডেথ। গ্রুপের সবাইকেই একটা গণ্ডি পার হতে হবে, যদি তারা পরের ধাপে যেতে চায়। তবে আমার মনে হয়, এই ম্যাচগুলো উৎসবের মতো হবে।’