জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার তালিকায় আসছে পরিবর্তন!

0
62

২০১৭ ও ২০১৮ সালে দেশের চলচ্চিত্র শিল্পে গৌরবোজ্জ্বল অবদানের জন্য শিল্পী ও কলাকুশলীকে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদানের ঘোষণা দিয়েছে তথ্য মন্ত্রণালয়।
মোট ২৮টি শাখায় ৬৪ জনকে দেওয়া হচ্ছে এ পুরস্কার। তবে নিয়মের বাইরে এক ভারতীয় নাগরিকের নাম এসেছে এতে।
২০১৭ সালের ‘ঢাকা অ্যাটাক’ চলচ্চিত্রের জন্য ‘সেরা সম্পাদক’ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে মো. কালামকে। কিন্তু তিনি ভারতীয় নাগরিক। তবে বিষয়টি ভুলবশত হয়েছে বলে স্বীকার করেছেন ছবিটির প্রযোজক সানী সানোয়ার। ইতোমধ্যে আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ ও ভুল স্বীকার করেছেন তারা। তাই পরিবর্তন আসতে পারে পুরস্কার তালিকায় বলে মনে করেন ২০১৭ সালের পুরস্কারের জুরি বোর্ডের সদস্য ও চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার। তিনি বলেন, ‘এটা ভুল হয়েছে। প্রযোজক প্রতিষ্ঠান আবেদনের তালিকা দেয় পুরস্কার কমিটির কাছে। তারা এখানে ভারতীয় নাগরিকের নাম দিয়েছে। মনোনীত শিল্পী মুসলিম হওয়ায় আমরা বুঝতে পারিনি উনি ভারতীয়। ইতোমধ্যে আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ ও ভুল স্বীকার করেছেন তারা। এখন মন্ত্রণালয়ের সিগন্যাল পেলে এটি দ্রুত সংশোধিত হবে।’

বিষয়টি নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করে ইতোমধ্যে তথ্য মন্ত্রণালয় বরাবর চিঠি দিয়েছেন বলে জানালেন ‘ঢাকা অ্যাটাক’ সিনেমার প্রযোজক সানী সারোয়ার। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এটা আমাদের অনাকাঙ্ক্ষিত ভুল। ইতোমধ্যে আমরা আমাদের ভুল স্বীকার ও দুঃখ প্রকাশ করে চিঠি দিয়েছি। আবেদনের তালিকায় আমাদের সিনেমার ‘টুপটাপ’ গানটির সুরকার অরিন্দমের নামের পাশে ‘ভারতীয়’ শব্দটি লেখা ছিল। কিন্তু মো. কালামের নামের পাশে সেটা ভুলবশত লেখা হয়নি। তার ঠিকানা ও ফোন নাম্বারও ভুল হয়েছিলো। ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর এত পুরস্কার প্রাপ্তির মধ্যে এটা আসলে আমাদেরও বিব্রত করেছে।’’

৭ নভেম্বর প্রকাশিত হয়েছে ২০১৭ ও ২০১৮ সালের পুরস্কার প্রাপ্তদের তালিকা। এবার ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ৪টি পুরস্কার পেয়েছে। 
উল্লেখ্য, গতবার ঘোষিত পুরস্কারেও বিতর্ক হয়েছিল। ‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৬’ আয়োজনে অন্য বিজয়ীদের পাশাপাশি সেরা নৃত্যপরিচালক হিসেবে মোহাম্মদ হাবিবের নাম ঘোষণা করা হয়। এরপর মোহাম্মদ হাবিব নিজেও এই পুরস্কার নিতে অস্বীকৃতি জানান। কারণ, সেই গানের কোরিওগ্রাফার তিনি ছিলেন না বলে দাবি করেন। পরবর্তী সময়ে  এ বিভাগটি স্থগিত করা হয়েছিল।