ইডেনে শুধু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নন, সৌরভের আমন্ত্রণে আরও চমক

0
188

টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার পর এই প্রথম ভারতের মাটিতে কোনো পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। সফরে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ এবং দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ রয়েছে। সফরের একেবারে শেষ ম্যাচে কলকাতার বিখ্যাত ইডেন গার্ডেনে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ এবং ভারত।

ইডেন গার্ডেনে অনুষ্ঠিতব্য এই টেস্ট নিয়ে ইতিমধ্যে বেশ পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) প্রেসিডেন্ট (ইলেক্ট) সৌরভ গাঙ্গুলি। তিনি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে এই টেস্ট মাঠে বসে দেখার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

খবরে প্রকাশ, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সৌরভ গাঙ্গুলির এই আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন। সৌরভ গাঙ্গুলি নিজেই সেই সংবাদ জানিয়েছেন। একই সঙ্গে জানিয়েছেন, কলকাতার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যকেও আমন্ত্রণ জানাবেন ইডেনে।

শুধু রাজনৈতিক নেতাদেরই নয়, সৌরভ গাঙ্গুলি আরও একটি চমকপ্রদ সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছেন। ইডেন গার্ডেন টেস্টকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে দারুণ একটি পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছেন তিনি। কলকাতার আনন্দবাজার পত্রিকাই জানায়, ২০০০ সালে বাংলাদেশের অভিষেক টেস্টে ভারত এবং বাংলাদেশের যে দুটি স্কোয়াড খেলেছিল, তাদের সবাইকে ইডেনে আমন্ত্রণ জানান সৌরভ।

২০০০ সালে ঢাকায় ওই টেস্টে অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক হয়েছিল সৌরভ গাঙ্গুলিরও। ঢাকার বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামেই প্রথম নাঈমুর রহমান দুর্জয়ের সঙ্গে অধিনায়ক হিসেবে প্রথম টস করতে নেমেছিলেন সৌরভ। সেই সঙ্গে শুরু হয়েছিল তার ঐতিহাসিক পথচলাও।

আনন্দবাজার পত্রিকা লিখেছে, ‘ঐতিহাসিক সেই টেস্টে খেলা ক্রিকেটাররা এখন সোনালি অতীত। সৌরভ এখন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট। তার আমলেই এবার ইডেনে প্রথম টেস্ট-দ্বৈরথ ভারত ও বাংলাদেশের। ইডেনে দু’দেশের প্রথম টেস্ট-সাক্ষাৎকে তাই স্মরণীয় করে তোলাই লক্ষ্য সৌরভের।

1st-test

কী ভাবছেন তিনি? সৌরভের ঘোষণা, বাংলাদেশের বোর্ডের সঙ্গে কথা বলব। যারা ভারত-বাংলাদেশ প্রথম টেস্টে খেলেছিলেন, সেই দলের ক্রিকেটারদের সংবর্ধনা দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে সিএবি’র। বাংলাদেশের বোর্ড প্রেসিডেন্টকে আমন্ত্রণ জানাব। অনুরোধ করব, ওই দলের সদস্যদের যেন টেস্টের প্রথম দিন আসার অনুমতি দেওয়া হয়।’

আনন্দ বাজারের রিপোর্টেই লেখা হয়েছে, ‘সেই ঐতিহাসিক ম্যাচের ভারতীয় দলের সদস্যদেরও আমন্ত্রণ জানাবেন সৌরভ। অধিনায়ক হিসেবে সৌরভের অভিষেক টেস্ট দলের সদস্য ছিলেন কিংবদন্তি শচিন টেন্ডুলকার, রাহুল দ্রাবিড়, শিবসুন্দর দাস, এস রমেশ, জাহির খান, জাগভাল শ্রীনাথের মতো তারকারা। তাদের সকলকেই আমন্ত্রণ জানানো হবে। সৌরভ বলছিলেন, প্রথম দিনের শেষে দু’দলের সদস্যদের স‌ংবর্ধিত করার কথা ভাবা হচ্ছে।’

ইডেন টেস্ট দেখতে ২১ নভেম্বর কলকাতায় যেতে পারেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সৌরভ গাঙ্গুলিই জানিয়েছেন এ তথ্য। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। তিনি হয়তো ২১ নভেম্বর রাতেই শহরে আসছেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকেও আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।’ ২২ নভেম্বর প্রথম দিনের শেষে তাদেরই সংবর্ধনা দেওয়ার কথা প্রথম টেস্ট দলের সদস্যদের।

২০০০ সালের টেস্টে বাংলাদেশ-ভারতের দুই দল

বাংলাদেশ: নাঈমুর রহমান দুর্জয় (অধিনায়ক), খালেদ মাসুদ পাইলট (উইকেটরক্ষক), শাহরিয়ার হোসেন, মেহরাব হোসেন, হাবিবুল বাশার, আমিনুল ইসলাম বুলবুল, আল শাহরিয়ার, আকরাম খান, মোহাম্মদ রফিক, হাসিবুল হোসেন শান্ত ও রঞ্জন দাস।

ভারত: সৌরভ গাঙ্গুলি (অধিনায়ক), সৈয়দ সাবা করিম (উইকেটরক্ষক), রাহুল দ্রাবিড়, শচিন টেন্ডুলকার, শিবসুন্দর দাস, এস রমেশ, মুরালি কার্তিক, সুনিল জোশি, অজিত আগারকার, জাগভাল শ্রীনাথ ও জহির খান।