ফিটনেসে সেরা ফরহাদ-রাহী, অ্যাভারেজ ‘মুশফিকদের’

0
55

ফিটনেসে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদেরই এগিয়ে থাকার কথা। কিন্তু না, জাতীয় দলের নিয়মিত সদস্যদের থেকেও ফিটনেসে এগিয়ে অনিয়মিত মুখদের। আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ ও ত্রিদেশীয় সিরিজকে কেন্দ্র করে ডাকা কন্ডিশনিং ক্যাম্পে বিফ টেস্টের পর বেরিয়ে এলো ক্রিকেটারদের ফিটনেসের হালচাল।

আজ রোববার সকাল ৮টায় শুরু হওয়া টাইগারদের ক্যাম্পের প্রথম দিন কেটেছে বিফ টেস্ট ও জিম করে। বিফ টেস্টের মাধ্যমে জানা যায় কি পরিমাণ অক্সিজেন একজন ক্রিকেটার নিতে পারে, যা ক্রিকেটারদের প্রাণশক্তির নির্ণায়ক হতে পারে। এই পরীক্ষার জন্য ব্যবহার করা হয় ভিওটুম্যাক্স নামে একটি পদ্ধতি।

মাশরাফি-সাকিবসহ এই ক্যাম্পে ডাকা হয়েছে ৩৫ জনকে। সাইফ হাসান ও নাঈম শেখসহ আছে এক ঝাঁক নতুন মুখও। আজ প্রথম দিন উপস্থিত ছিলেন ২৩ জন। শ্রীলংকার বিপক্ষে ইমার্জিং কাপে খেলার কারণে উপস্থিত হতে পারেনি বাকিরা। ছুটিতে আছেন সাকিব আল হাসান। আর বিয়ের কারণে ছুটিতে থাকায় ক্যাম্পে অনুপস্থিত ছিলেন সাব্বির।

ক্রিকেটারদের ফিটনেসের অবস্থা কেমন জানতে চাইলে বিসিবির ট্রেইনার বায়জিদুল ইসলাম দৈনিক আমাদের সময়কে জানান, জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের ফিটনেসের অবস্থা অ্যাভারেজ। ফিটনেসে সবচেয়ে ভালো করেছেন ফরহাদ রেজা ও আবু জায়েদ রাহী। দীর্ঘদিন জাতীয় দলের বাইরে থাকা জহুরুল ইসলাম অমিও ভালো করেছেন।

বায়জিদ আরও বলেন, ‘আমি যতটুকু দেখেছি ফরহাদ রেজা ও আবু জায়েদ রাহী ভালো করেছেন। জহুরুল ইসলাম অমিও অনেক ভালো করেছেন। বাকি সবাই অ্যাভেরেজ, কেউ তেমন খারাপ করেনি।’

তবে ক্যাম্পে উপস্থিত থাকলেও বিফ টেস্ট দেননি মাশরাফি ও সৌম্য। এ প্রসঙ্গে বায়জিদ বলেন, ‘সৌম্য সরকার অ্যান্টিবায়োটিক খাচ্ছেন, তাই আজ বিফ টেস্ট দিতে পারেননি। ২৪ আগস্ট তার এই টেস্ট দেওয়ার কথা রয়েছে।’

তবে ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি কেন দেননি এই তথ্য জানাতে পারেননি বায়জিদ। তিনি বলেন, ‘মাশরাফি আসছিলেন, তবে বিফ টেস্ট দেননি, কবে নাগাদ দিবে তাও বলতে পারছি না।’

আগামী ৫ থেকে ৯ সেপ্টেম্বর আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টটি অনুষ্ঠিত হবে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়ে ২৪ সেপ্টেম্বর শেষ হবে ত্রিদেশীয় সিরিজ। ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশসহ খেলবে আফগানিস্তান ও জিম্বাবুয়ে। খেলাগুলো হবে ঢাকায় মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম ও চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে।