গোপনে আরেক সম্পর্কে দিয়ার স্বামী?

0
51

২০১৪ সালে দিয়া ভালোবেসে বিয়ে করেন দীর্ঘদিনের বিজনেস পার্টনার ও প্রেমিক সাহিলকে। বিয়ের আগে অনেকদিন তারা লিভ-ইনও করেছেন। বলিউডের আদর্শ দম্পতি হিসেবে তাদের বিষয়ে সবাই জানে। তাদের সংসারে ভাঙন ধরেছে, তা কেউ ভাবতেও পারেননি।

দিয়া-সাহিল এগারো বছরের সম্পর্কের ইতি টেনেছেন। তার দু’জনেই এক পোস্টে লিখেছেন, ‘সম্পর্ক শেষ করলেও আমাদের বন্ধুত্ব থাকবে।’ তবে কী কারণে তাদের বিবাহবিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত, তা স্পষ্ট করেননি। দিয়া-সাহিলের বিচ্ছেদ নিয়ে বলিউডে ইতোমধ্যেই গুঞ্জন শুরু হয়ে গেছে।

‘লাভ ব্রেক আপ জিন্দেগি’ ছবিতে একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে পরিচালক ও ব্যবসায়ী সাহিলের সাথে ঘনিষ্ঠতা বেড়ে যায় দিয়ার। সেই ঘনিষ্ঠতাকেই স্বীকৃতি দিতেই তারা বিয়ে করেছিলেন। কিন্তু সেই সংসার টিকিয়ে রাখতে পারেননি তারা।

‘জাজমেন্টাল হ্যায় কেয়া’ ছবির চিত্রনাট্যকার কণিকা ধিলোঁর সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে সাহিলের। এক মাস আগেই এ বিষয়ে জানতে পারেন দিয়া। তারপর থেকেই দিয়া আর সাহিলের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হয়।

‘জাজমেন্টাল হ্যায় কেয়া’র পরিচালক প্রকাশ কোভেলামুড়ির প্রাক্তন স্ত্রী কণিকা। তাদের সম্পর্কও দু’বছর আগেই ভেঙে যায়। প্রায় মাস ছয়েক সাহিল ও কণিকা ডেট করছেন। দিয়া কোনোভাবেই বুঝতে পারেনি। জানার পরেই সম্পর্ক শেষ করার সিদ্ধান্ত নেন অভিনেত্রী। আরেক পোস্টে তারা বলেছেন, ভবিষ্যতে এ বিষয়ে মন্তব্য করবেন না।

২০০১ সালে ‘রেহেনা হে তেরে দিলমে’ ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন দিয়া। বেশ কয়েকটি ছবিতে অভিনয় করেও প্রথম সারিতে পৌঁছার প্রতিযোগিতায় পিঁছিয়ে যান তিনি। পরে অনেকদিন বাদে ‘লাভ ব্রেক আপ জিন্দেগি’ ছবিতে অভিনয় করে সফলতা না পেলেও জীবন সঙ্গীকে খুঁজে পেয়েছিলেন দিয়া মির্জা।