কণ্ঠগজরা গ্রাম —খন্দকার জাহাঙ্গীর হুসাইন

0
84

ভাঙে মসজিদ, ভাঙে মন্দির

বসতের ঘর ভাঙে

ভেঙে যায় সবচাষের জমিন

সর্বনাশা গাঙে।

হাট-বাজার আর দুধের গাভী

বিলীন গভীর রাতে

মুরগির খোয়ার তাও ভেসে যায়

প্রবল স্রোতের সাথে।

ভেঙেছে আরো স্কুল-কলেজ

গোরস্তানের মাটি

চারিদিকে শুনি হায়!হায়!

শুধুই কান্নাকাটি।

মজিদের মা বুকের পরে

থাপ্পর দিয়ে কাঁদে

ক্রদন ধ্বনি তোফার মায়ের

শুনছি খানিক বাদে।

কেঁদে হয়রান ফজর আলী

চোখ মোছে আর বলে

যা ছিল মোর ঘর দরজা

সব যে নদীর জলে।

নাই অবশেষ গ্রামের মাটি

একটু বাঁচার আশা

কণ্ঠগজরার সব খেয়েছে

পদ্মা সর্বনাশা।