ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও ক্ষমতাসীন বিজেপির সভাপ্রধান অমিত শাহ লোকসভার অধিবেশনে প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে বলেছেন, তাদের কারণেই জম্মু-কাশ্মীরের এক তৃতীয়াংশ ভারতের নিয়ন্ত্রণে নেই। এনডিটিভি।

লোকসভায় জম্মু-কাশ্মীরে রাষ্ট্রপতি শাসনের মেয়াদ বৃদ্ধি নিয়ে বিতর্ক চলাকালীন অমিতের আক্রমণের সামনে পড়তে হয় রাহুল গান্ধীর দলকে। রাষ্ট্রপতি শাসন জারি বিষয়ক দেশটির সংবিধানের ৩৫৬ ধারার উল্লেখ করে অমিত শাহ বলেন, ‘দেশভাগের জন্য দায়ী কে?’

সংবিধানের ওই ধারাকে ব্যবহার করে কোনো রাজ্যের ওপর কেন্দ্রীয় শাসন প্রয়োগ করা নিয়ে বিতর্ক চলাকালীন তিনি বলেন, ‘বিজেপি নয়, কংগ্রেসই সংবিধানের ৩৫৬ ধারাকে রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করেছে।’

প্রথমবারের মতো মোদির মন্ত্রিসভায় স্থান পাওয়া এই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘কোনো বিশেষ পরিস্থিতি তৈরি হলে আমরা বাধ্য হয়ে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করি। এর আগে ১৩২ বার সংবিধানের ৩৫৬ ধারাকে ব্যবহার করা হয়েছে। যার মধ্যে ৯৩ বার এটি ব্যবহার করেছে কংগ্রেস। তারা এখন শেখাবে কীভাবে এই ধারা ব্যবহার করা উচিত?’

অমিত শাহ এমন বক্তব্য দেয়া শুরু করলে তীব্র হট্টগোল ও হৈচৈ শুরু করে তার কথার প্রতিবাদ করেন কংগ্রেস সাংসদরা। অমিত আরও বলেন, ‘দেশভাগ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন মনিশ তিওয়ারি। কিন্তু আমি তাকে একটা প্রশ্ন করতে চাই। কে এই দেশভাগের জন্য দায়ী? বর্তমানে জম্মু ও কাশ্মীরের এক তৃতীয়াংশ আমাদের নিয়ন্ত্রণে নেই। এর জন্য দায়ী কে?’

অমিত শাহের এই অভিযোগে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর নাম জড়ানোয় প্রতিবাদে সোচ্চার হয়ে ওঠেন কংগ্রেস সাংসদরা। অমিত এ সময় বলেন, ‘আচ্ছা, এই নামটি বললে যদি এত কষ্ট হয় তাহলে তাকে আমি দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হিসেবেই উল্লেখ করব।’