১০০ রুপিতে মিলবে ভারতীয় নাগরিকত্ব

0
478

ভারতীয় নাগরিকত্ব আবেদনের রেজিস্ট্রেশন ফি মাত্র ১০০ রুপি নির্ধারণ করেছে দেশটির সরকার। এর আগে এই ফি ১৫ হাজার রুপি ছিলো। মূলত বাংলাদেশসহ প্রতিবেশি দেশগুলোর সংখ্যালঘু শরণার্থীদের জন্য এ নতুন নিয়ম চলু করেছে দেশটির সরকার।

শনিবার দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণলালয়ের পক্ষ থেকে গেজেট নোটিফিকেশন জারির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়। ভারতীয় সংবাদ সংস্থা টাইমস অব ইন্ডিয়া এমন খবর প্রকাশ করে।

ওই গেজেট নোটিফিকশনে জানানো হয়, ‘বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান এই তিন প্রতিবেশি রাষ্ট্রের হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ, জৈন, পার্শি ও খ্রিস্টান সম্পদ্রায়ের মানুষ এবং ভারতে দীর্ঘ মেয়াদি ভিসা (লং টার্ম ভিসা বা এলটিভি) নিয়ে থাকা মানুষদের ভারতীয় নাগরিকত্ব পেতে প্রয়োজনীয় রেজিস্ট্রেশন ফি বাবদ মাত্র ১০০ রুপি খরচ করতে হবে।’

এই কারণে দেশটির সরকার ২০০৯ সালের নাগরিকত্ব আইন সংশোধন করেছে। নতুন নিয়মে মোতাবেক জেলার কালেক্টর, ডেপুটি কমিশনার বা জেলা শাসকের কাছে প্রতিবেশি দেশ থেকে আগত সংখ্যালঘুদের নাম নথিভুক্ত করতে হবে এবং নাগরিকত্বের শপথ নিতে হবে। ওই সরকারি কর্মকর্তাদের অনুপস্থিতিতে সাব ডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেটের সামনেও নাগরিকত্বের শপথ নিতে পারবেন হিন্দুসহ অন্যান্য সংখ্যালঘু নাগরিকরা।

গেজেট আরো উল্লেখ করা হয়, বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান ছাড়া অন্য কোনো দেশে বসবাসকারী হিন্দুসহ অন্যান্য সংখ্যালঘুদের ভারতে রেজিস্ট্রেশন বাবদ ১০ হাজার রুপি দিতে হবে।

এদিকে ভারতের বিভিন্ন হিন্দু সংগঠন গুলো কেন্দ্রীয় সরকারের এমন সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানায়।

ভারতীয় নাগরিকত্ব আবেদনের রেজিস্ট্রেশন ফি মাত্র ১০০ রুপি নির্ধারণ করেছে দেশটির সরকার। এর আগে এই ফি ১৫ হাজার রুপি ছিলো। মূলত বাংলাদেশসহ প্রতিবেশি দেশগুলোর সংখ্যালঘু শরণার্থীদের জন্য এ নতুন নিয়ম চলু করেছে দেশটির সরকার।

শনিবার দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণলালয়ের পক্ষ থেকে গেজেট নোটিফিকেশন জারির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়। ভারতীয় সংবাদ সংস্থা টাইমস অব ইন্ডিয়া এমন খবর প্রকাশ করে।

ওই গেজেট নোটিফিকশনে জানানো হয়, ‘বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান এই তিন প্রতিবেশি রাষ্ট্রের হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ, জৈন, পার্শি ও খ্রিস্টান সম্পদ্রায়ের মানুষ এবং ভারতে দীর্ঘ মেয়াদি ভিসা (লং টার্ম ভিসা বা এলটিভি) নিয়ে থাকা মানুষদের ভারতীয় নাগরিকত্ব পেতে প্রয়োজনীয় রেজিস্ট্রেশন ফি বাবদ মাত্র ১০০ রুপি খরচ করতে হবে।’

এই কারণে দেশটির সরকার ২০০৯ সালের নাগরিকত্ব আইন সংশোধন করেছে। নতুন নিয়মে মোতাবেক জেলার কালেক্টর, ডেপুটি কমিশনার বা জেলা শাসকের কাছে প্রতিবেশি দেশ থেকে আগত সংখ্যালঘুদের নাম নথিভুক্ত করতে হবে এবং নাগরিকত্বের শপথ নিতে হবে। ওই সরকারি কর্মকর্তাদের অনুপস্থিতিতে সাব ডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেটের সামনেও নাগরিকত্বের শপথ নিতে পারবেন হিন্দুসহ অন্যান্য সংখ্যালঘু নাগরিকরা।

গেজেট আরো উল্লেখ করা হয়, বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান ছাড়া অন্য কোনো দেশে বসবাসকারী হিন্দুসহ অন্যান্য সংখ্যালঘুদের ভারতে রেজিস্ট্রেশন বাবদ ১০ হাজার রুপি দিতে হবে।

এদিকে ভারতের বিভিন্ন হিন্দু সংগঠন গুলো কেন্দ্রীয় সরকারের এমন সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানায়।