হাফসেঞ্চুরি করেই তামিম আউট

0
22

ফাইনাল নিশ্চিত হয়েছে আগেই। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ‘নিয়মরক্ষা’র ম্যাচে বাংলাদেশের লক্ষ্য ২৯৩। সেই লক্ষ্যে ডাবলিনে ত্রিদেশীয় ম্যাচে বাংলাদেশের স্কোর ১৮ ওভারে ১ উইকেটে ১২৪ রান।

আরেকবার হতাশায় ডুবলেন। আরেকবার ভালো শুরু করেও ইনিংস লম্বা করতে না পারার আক্ষেপে পুড়লেন তামিম ইকবাল। চমৎকার ব্যাটিংয়ে হাফসেঞ্চুরি পূরণ করার পরপরই আউট হয়ে গেছেন বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল ওপেনার।

আগের ম্যাচের হতাশা দূর করে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৪৬তম হাফসেঞ্চুরি পূরণ করলেও ৫৭ রানে দুর্ভাগ্যজনক আউটে ফিরতে হয়েছে তাকে। রয়েড রানকিনের বল তার ব্যাটে লেগে আঘাত করে স্টাম্পে। প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে ৫৩ বলের ইনিংসটি তামিম সাজান ৯ বাউন্ডারিতে।

সুযোগ পেয়েই লিটনের ফিফটি

সুযোগ পেয়েই নিজেকে প্রমাণ করলেন লিটন দাস। সৌম্য সরকারকে বিশ্রাম দিয়ে লিটনকে নামানো হয়েছে ওপেনিংয়ে। তামিমের সঙ্গে ইনিংস শুরু করে এই ব্যাটসম্যান পূরণ করেছেন হাফসেঞ্চুরি। তামিম ফিফটি পূরণ করার পরপরই তিনিও স্পর্শ করেন মাইলফলকটি।

জর্জ ডকরেলের বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় হাফসেঞ্চুরি পূরণ করেন লিটন। ৪৭ বলে তিনি পান ফিফটির দেখা।

তামিমের হাফসেঞ্চুরি

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ফিরতি ম্যাচটা ভালো কাটেনি তামিম ইকবালের। এক ম্যাচ বিরতি দিয়ে আবার হাফসেঞ্চুরি পূরণ করলেন ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৮০ রানের ইনিংস খেলা বাঁহাতি ওপেনার। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে পূরণ করেছেন তিনি ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৪৬তম হাফসেঞ্চুরি।

রয়েড রানকিনের বল থার্ডম্যানে ঠেলে দিয়ে ৪৬ বলে ফিফটি পূরণ করেন তামিম। মাইলফলকটি স্পর্শ করতে তামিম মেরেছেন ৮টি বাউন্ডারি।

তামিম-লিটনের ব্যাটে দারুণ শুরু

এই ম্যাচে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে সৌম্য সরকারকে। ত্রিদেশীয় সিরিজের আগের দুই ম্যাচে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করে এই ওপেনারের বিশ্বকাপ ‘প্রস্তুতি’ হয়েছে দুর্দান্ত। তাকে বিশ্রাম দিয়ে সুযোগ দেওয়া হয়েছে লিটন দাসকে। তামিম ইকবালের সঙ্গে ওপেনিংয়ে নেমে শুরুটা দারুণ করেছেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

তাতে বাংলাদেশের শুরুটাও হয়েছে দারুণ। আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ের চেয়ে ঠাণ্ডা মাথায় দেখেশুনে খেলার পথে হেঁটেছেন তামিম-লিটন। এরপরও ৮.৪ ওভারেই ৫০ ছাড়ায় বাংলাদেশের স্কোর।

আয়ারল্যান্ডের রান ২৯২

পল স্টারলিংয়ের সেঞ্চুরি (১৩০) ও উইলিয়াম পোর্টারফিল্ডের (৯৪) সেঞ্চুরি ছুঁইছুঁই ইনিংসে আয়ারল্যান্ড নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে করেছে ২৯২ রান। বল হাতে দারুণ দিন পার করেছেন আবু জায়েদ রাহী। এই পেসারের শিকার ৫ উইকেট।

আয়ারল্যান্ডের দ্বিতীয় উইকেটটি তুলে নেন রাহী। গত সোমবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে অভিষেকে ৯ ওভারে ৫৬ রান দিয়ে উইকেটশূন্য ছিলেন এই পেসার। অবশেষে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ১৫তম ওভারে প্রথম উইকেট পান তিনি। শেষ পর্যন্ত ৯ ওভারে ৫৮ রান দিয়ে তার শিকার ৫ উইকেট।

রাহীর ৫ উইকেট প্রাপ্তির দিনে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের শিকার ২ উইকেট। একটি উইকেট পেয়েছেন রুবেল হোসেন।