ধামরাইয়ে বেইলি সেতু ভেঙ্গে ট্রাক দেবে গেছে বালুতে

0
90

ধামরাই প্রতিনিধি : ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাইয়ের ঢুলিভিটা থেকে কালিয়াকৈর হয়ে মাওনা পর্যন্ত ৫০ কিলোমিটার আঞ্চলিক মহাসড়কের প্রশস্তকরণ ও বিভিন্ন পয়েন্টে পুরাতন সেতু ভেঙে নতুন সেতু আবার কোন কোন পয়েন্টে বক্সকালভার্ট নির্মাণের কাজ চলছে প্রায় পাঁচ মাস ধরে। মঙ্গলবার রাতে এ সড়কের ধামরাইয়ের আমতলার ডাইভারসনের বেইলি সেতুর ওপর বালুভর্তি একটি ড্রাম ট্রাক উঠে পড়ে। এতে সেতুর চারটি স্টীলেরপাত ভেঙে সেতুর নিচে দেওয়া বালুর বস্তায় ট্রাকটি দেবে যায়। তবে কেউ হতাহত হয়নি। এরপর থেকে ওই সড়কে যানচলাচল বন্ধ রয়েছে।

এ সড়ক দিয়ে ডিইপিজেডসহ বিভিন্ন পোষাক কারখানার শ্রমিকবাহী বাস চলাচল করে থাকে। বেইলি সেতুটি ভেঙে পড়ায় পোশাক শ্রমিকসহ বিভিন্ন পর্যায়ের যাত্রীদের অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। অনেকে দেড় থেকে দুই কিলোমিটার পায়ে হেটে গাড়ীতে উঠতে হচ্ছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, সড়ক ও জনপথ কর্তৃপক্ষের গাফলতি কিংবা অবহেলার কারণে পুরাতন বেইলি সেতুর লক্করঝক্কর সরঞ্জাম দিয়েই ডাইভারসনের বেইলি সেতুটি স্থাপন করা হয়েছে। ফলে এ সেতুতে প্রায়ই ছোট-বড় দুর্ঘটনা ঘটছে।

এছাড়া একই সড়কে ধামরাই পৌর শহরের বিজয়নগর দিয়ে বিকল্প সড়কের আইঙ্গণ এলাকায় বংশী নদীর ওপর পুরাতন সেতু ভেঙে ফেলা হয়েছে। কিন্তু যানবাহন চলাচলে সেতুর পাশে কোন সড়ক বা ডাইভারসন তৈরী করা হয়নি। ফলে বাইপাস বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ধামরাই বাজারের ভিতর দিয়ে প্রতিদিন বিভিন্ন পোশাক কারখানার শ্রমিকবাহী বাস, ট্রাক, ড্রামট্রাক, ইজিবাইক, ম্যাক্সি, কাভার্ডভ্যান ও ভারী যানবাহনসহ শতশত যানবাহন চলাচল করছে ১৯৯০ সনে নির্মিত শরীফবাগের বেইলি সেতুর ওপর দিয়ে।

অতিরিক্ত ওজনের যানবাহন চলাচল করাতে এ সেতুটিও লক্করঝক্কর হয়ে গেছে। পড়েছে হুমকির মুখে। এতে যেকোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে। এছাড়া ডাইভারসন না করায় কায়েতপাড়ার ভিতরে অপ্রশস্ত বা সরু সড়ক দিয়েই যান চালকরা যেতে বাধ্য হচ্ছে। ফলে বিপরীতমুখী গাড়ী পাশকাটিয়ে যেতে না পারায় ধামরাই বাজারের যাত্রাবাড়ি থেকে আফাজউদ্দিন স্কুল ও কলেজ পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকাজুড়ে দিনের অধিকাংশ সময় ভয়াবহ যানজট লেগে থাকে। গত ৯ ফেব্রুয়ারী এ যানজটের কবলে পড়েন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান ও স্থানীয় এমপি বেনজীর আহমদ। পরে এমপি বেনজীর আহমদ দুই ঘন্টা পর পায়ে হেটে এক অনুষ্ঠানে যোগদান করেন। এ নিয়ে গত ১০ ফেব্রোয়ারী দৈনিক ফুলকিতে “ধামরাইয়ে যানজটে দু’ঘন্টা মন্ত্রী-এমপির গাড়ি’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। 

এ বিষয়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগ মানিকগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী এমদাদ হোসেন বলেন, নিষেধ থাকা সত্ত্বেও অতিরিক্ত ওজনের যানবাহন চলাচল করছে এ সড়ক দিয়ে। বিশেষ করে প্রায় ৫০ টন ওজনের বালুভর্তি ড্রাম ট্রাক চলাচল করাতে অস্থায়ী বেইলি সেতুটি ভেঙে যায়।  জরুরী ভিত্তিতে সেতুটি মেরামতের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।  

প্রসঙ্গত, আসন্ন ঈদ উল ফিতরে ঘরমুখী মানুষের ভিড় বেড়ে যাওয়া এবং ট্রাফিক অব্যবস্থাপনার অভাবে তীব্র যানজটের আশঙ্কা রয়েছে এ সড়কে।