সাভারে সরকার ট্রাভেলসের ড্রাইভারকে পিটিয়ে আহত

0
204

স্টাফ রিপোর্টার : সাভারে সরকার ট্রাভেলসের ড্রাইভারকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে বনগাঁও ইউনিয় পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামের ভাগিনা শরিফ। এসময় সাইফুল চেয়ারম্যান বাসের ড্রাইভারকে গালিগালাজ করেন। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা-আরিচা মহসড়কের হেমায়েতপুরের সুগন্ধা হাউজিংয়ের সমনে এ ঘটনা ঘটে।

জানাযায়, সরকার ট্রাভেলসের একটি যাত্রীবাহী বাস সকালে পাবনা থেকে ঢাকার উদ্দ্যেশে রওনা হয়। যাত্রীবাহি বাসটি হেমায়েতপুর বাসস্ট্যান্ডের কাছে পৌঁছালে একটি মাইক্রোবাসকে দ্রুত অতিক্রম করার কারণে ওই মাইক্রোবাসটির যাত্রীরা ক্ষিপ্ত হয়ে ড্রাইভারকে বেদম পেটায়।

প্রত্যাক্ষর্দশীরা জানান, সরকার ট্রাভেলসের যাত্রীবাহী বাসটি আলমনগর সুগন্ধা হাউজিংয়ের সমনে আসলে একটি সাদা রঙের নোয়া গাড়ি দিয়ে বাসটির গতিরোধ করে। এসময় শরিফ কাঠের রোলার দিয়ে যাত্রীবাহী বাসের ড্রাইভারকে এলোপাথারি পেটাতে থাকে। পরে সাইফুল চেয়ারম্যান এসে ড্রাইভারেকে গালিগালাজ করে শরিফকে নিয়ে চলে যায়।

সরকার ট্রাভেলসের ড্রাইভার স্বপন মিয়া জানান, আমি পাবনা থেকে গাড়ি নিয়ে ঢাকার গাবতলী যাচ্ছিলাম। পথে হেমায়েতপুর বাসস্ট্যান্ডের কাছে একটি মাইক্রোবাস দাড়িয়ে ছিলো। আমি মাইক্রোবাসটির পাশ দিয়ে দ্রুত অতিক্রম করায় তারা আমার পিছু নিয়ে সুগন্ধা হাউজিংয়ের সামনে ব্যারিকেট দিয়ে বাসটি থামায়। পরে কাঠের রোলার দিয়ে বেধরক মারধর করে চলে যায়। পরে আমি যাত্রীবাহী বাসটি রাস্তার পাশে রেখে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাসটি আরেকজন ড্রাইভার দিয়ে চালিয়ে ঢাকায় নিয়ে যাই।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বনগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম বলেন, আমরা হেমায়েতপুর বাসস্ট্যান্ডে একটি মাইক্রোবাসে ৭ জন ছিলাম। এ সময় সরকার ট্রাভেলসের একটি বাস বেপরোয়া গতিতে এসে আমাদের গাড়ির সমনে এসে হার্ডব্রেক করে। এরপরে আমাদের মাইক্রোবাসে ধাক্কা দেয়। আমরা অল্পের জন্য আল্লাহর রহমতে বেঁচে গেছি। পরে আমার ভাগিনা শরিফ সুগন্ধা হাউজিংয়ের সমনে গিয়ে ড্রাইভারকে দুই একটা চরথাপ্পর দিয়েছে।