দাড়ি আপনাকে যেভাবে সুস্থ রাখবে

0
491

দাড়ি পুরুষের সৌন্দর্য্যের অন্যতম অনুষঙ্গ। চেহারার সাথে মানানসই দাড়ি একজন পুরুষের ব্যক্তিত্ব বহুগুণে বাড়িয়ে দিতে পারে। তাছাড়া ফ্যাশনেবল দাড়ি আপনার চেহারায় আকর্ষণীয় লুক ফুটিয়ে তুলতে সক্ষম। বয়স, পছন্দ, রুচি আর ট্রেন্ড বুঝে যে কোন বিয়ার্ড কাট আপনার গ্রহণযোগ্যতা বাড়িয়ে তুলবে সবখানে।

চিকিৎসাবিজ্ঞানেও দাড়ির উপকারিতা বয়ান করা হয়েছে। সে হিসেবে দাড়ির কোনো অপকারিতা নেই বললেই চলে। চলুন দেখে নিই দাড়ির উল্লেখযোগ্য কয়েকটি উপকারিতা-

সাধারণত রোদের আলট্রাভায়োলেট রশ্মি মুখের ত্বকের খুব ক্ষতি করে। এই সমস্যা থেকে দাড়ি আপনাকে খুব সহজেই রক্ষা করতে পারে। ফলে স্কিন ক্যান্সারের ঝুঁকি থেকে আপনি রেহাই পাবেন অন্যদের চেয়ে ৯০ থেকে ৯৫ শতাংশ বেশি।

অকালে ত্বকের বার্ধক্য ঠেকাতে সাহায্য করে দাড়ি। ফলে দাড়িবিহীন লোকের চাইতে আপনাকে দেখা যাবে অনেক বেশি তরুণ। তাছাড়া দাড়ির কারণে ব্রণের ঝুঁকিও কমে যায় অনেকটা।

যারা নিয়মিত শেভ করেন তাদের অন্যতম বিরক্তির কারণ হচ্ছে ত্বকের নিচে ফুলে ওঠা ইনগ্রোন হেয়ার। এছাড়া শেভের কারণে ত্বকের উপরি অংশের বেশ ক্ষতি হয়। দাড়িতে আপনি এই সমস্যা এড়াতে পারবেন। দাড়ি বড় করলে ইনগ্রোন হেয়ার দেখা দেয় না একেবারেই।

দাড়ি আপনার চেহারায় একটা পৌরুষ ভাব ফুটিয়ে তোলে। ইভ্যাল্যুয়েশন এন্ড হিউম্যান বিহেভিয়ার জার্নালের প্রকাশিত এক গবেষণায় এই তথ্য প্রমাণিত। গবেষণায় দেখা গেছে, মোটামুটি ১০ দিনের পুরনো দাড়িতে একজন পুরুষকে সবচেয়ে বেশি আকর্ষণীয় লাগে।

আমেরিকার বোস্টন ইউনিভার্সিটির ডক্টর হার্বার্ট মেসকন বলেন, দাড়ি শেভ করার পেছনে একজন পুরুষ সারাজীবনে গড়ে ৩,৩৫০ ঘন্টা ব্যয় করেন। যারা দাড়ি রাখেন তাদের এই ঝামেলা নেই।

প্রতিদিনের চলাফেরায় মুখের ত্বকে প্রচুর ধুলোবালি আটকে যায়। এই ধুলোবালি একসময় ফুসফুসে প্রবেশ করে শরীরে অসুস্থতা এবং ইনফেকশনের সৃষ্টি করে। মুখের দাড়ি এই ধুলোবালিকে আটকে দেয় আর আপনাকে রাখে সুস্থ।