ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দিতে বিয়ের আয়োজন, আটক ৬

0
127

নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা:

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় ধর্ষণের শিকার এক কিশোরীকে অভিযুক্ত ধর্ষকের সঙ্গে বিয়ে দেওয়ার আয়োজন করা হয়। ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দিতে স্থানীয় প্রভাবশালীরা ধর্ষকের সঙ্গে কিশোরীর বাল্যবিয়ের ব্যবস্থা করে। এ ঘটনায় জড়িত থাকায় অভিযুক্ত ধর্ষক, কাজীর সহকারীসহ ছয়জনকে আটক করেছে পুলিশ। রবিবার (৭ এপ্রিল) রাতে সস্তাপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, রবিবার দুপুরে সদর উপজেলার ফতুল্লার সস্তাপুর এলাকার আরিফুর রহমানের ভাড়াটিয়া ওই কিশোরী (১৪) ছাদে কাপড় রোদে দিতে যায়। এ সময় ওই কিশোরীকে প্রতিবেশী ভাড়াটিয়া নাসির মিয়া তাকে রুমে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে মেয়েটি তার পরিবারকে বিষয়টি জানায়। তাকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওই কিশোরীর পরিবার থানায় মামলা করতে উদ্যোগ নেয়। এ সময় স্থানীয় প্রভাবশালীরা বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য কিশোরীর পরিবারকে চাপ দেয়। তারা নাসিরের কাছ থেকে আর্থিক সুবিধা নিয়ে ওই দিন রাতেই তার সঙ্গে মেয়েটির বিয়ে দেওয়ার উদ্যোগ নেয়। বিষয়টি এলাকার লোকজন জানতে পেরে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে নাসির মিয়া (২৫), কাজীর সহকারী ফিরোজ আলম (৪৫), খোরশেদ আলম খুশু (৪৫),আনোয়ার হোসেন (৪৫), মনির হোসেন (৪৬), আরিফুর রহমানকে (৩৫) আটক করে।

ফতুল্লা মডেল থানার পরিদর্শক আবদুল আজিজ জানান, নাসিরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এই ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।