তারেক রহমানকে লন্ডন থেকে দেশে ফিরিয়ে আনতে যুক্তরাজ্যকে চিঠি

0
200

ফুলকি ডেস্ক : বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে যুক্তরাজ্য থেকে দেশে ফিরিয়ে আনতে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে চিঠি দেয়া হয়েছে। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম যুক্তরাজ্য সরকারকে এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক চিঠি দেয়ার কথা স্বীকার করেছেন। বিবিসি বাংলা

তিনি বলেন, অনেকগুলো গুরুতর মামলায় দেশের আদালত তারেক রহমানকে সাজা দিয়েছে। এখন সরকার তাকে দেশে ফিরিয়ে এনে দ- কার্যকরে বদ্ধপরিকর। তিনি দৃঢ়তার সঙ্গে সোমবার বিবিসিকে বলেন, আমরা সোজা কথায় তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনতে চাই।

শাহরিয়ার আলম বলেন, মামলার বয়ানেই তার বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগের বিবরণ বিদ্যমান। বৃটিশ সরকার এতে প্রভাবিত হবে।

উল্লেখ্য, তারেক রহমানের অনুপস্থিতিতে ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা, অর্থ পাচার, ও জিয়া অরফানেজ ট্রাষ্টের মামলায় দীর্ঘ কারাদ-  হয়েছে।

একটি সূত্রমতে, বাংলাদেশের চিঠির প্রেক্ষিতে যুক্তরাজ্য সরকার প্রাথমিক জবাব দিয়েছে। বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দেয়া হয়েছে। অতঃপর চিঠিটি যাবে সে দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে।

বিবিসির এক প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, যুক্তরাজ্যের সঙ্গে বাংলাদেশের বন্দী প্রত্যর্পন চুক্তি না থাকলেও বন্দী বিনিময়ে সমস্যা হওয়ার কথা নয়। এটা কোন বাধা হতে পারে না। এসব বলে যুক্তরাজ্য সরকার দায়িত্ব এড়াতে পারবে না। বহু দেশের মধ্যে প্রত্যর্পন চুক্তি থাকে না। তার পরও বন্দী বিনিময় হয়।

বিএনপির মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বিএনপি, জিয়া পরিবার ও এই পরিবারের প্রধান ব্যক্তিদের সাজা দিতে, নির্যাতন চালাতে ক্ষমতাসীন সরকার বদ্ধপরিকর। এটা নতুন কিছু নয়।

তিনি বলেন, তারেক সাহেব চিকিৎসার জন্য লন্ডনে রয়েছেন। তিনি এখনো অসুস্থ। তাকে নিয়মিত থেরাপি দেয়া হচ্ছে। আর যদি আইনিভাবে বিষয়টি মোকাবেলা করতে হয় আমরা তাও করবো।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালে জামিনে মুক্তি পেয়ে তারেক রহমান লন্ডনে যান। ১০ বছর তিনি লন্ডনে রয়েছেন।

সৈয়দ ইকবাল বিবিসিকে বলেন, তারেক রহমানের বিষয়টি আইনগত বিষয়। বৃটিশ সরকার আবেদনটি যাচাই বাছাই করবে। হাইকোর্ট, সুপ্রিমকোর্টে যেতে পারে বিষয়টি।

তারেক রহমানের আইনজীবী একেএম কামরুজ্জামান লন্ডন থেকে বিবিসিকে বলেন, আমার কোন প্রতিক্রিয়া নেই। সবাই জানে রাজনৈতিক মামলায় তাকে দ- দেয়া হয়েছে। তারেক রহমানকে যুক্তরাজ্য যদি বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয় এ প্রশ্নে কামরুজ্জামান বলেন, এটা অনেক দূরবর্তী বিষয়। তিনি বলেন, বাংলাদেশে আইনের শাসন নেই এটা সবারই জানা। সেখানে তারেক রহমান কি ফেয়ার ট্রায়াল পাবেন।