আঙুলের চোটে নিউ জিল্যান্ড যেতে পারছেন না সাকিব

 

বিপিএল ফাইনালের হার বিষাদের যে ছাপ রেখেছে মনে, তার চেয়ে বড় চিহ্ন এঁকে দিয়েছে সাকিব আল হাসানের শরীরে। ফাইনালে পাওয়া আঙুলের চোটে নিউ জিল্যান্ড সফর থেকে ছিটকে গেছেন বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক ও ওয়ানডে সহ-অধিনায়ক।

 

শুক্রবারের ফাইনালে ব্যাটিংয়ে কেবল ৫ বল খেলেছেন সাকিব, সর্বনাশ হয়ে গেছে ওই সময়টুকুতেই। একাদশ ওভারের পঞ্চম বলে থিসারা পেরেরার শর্ট ডেলিভারিতে পুল করতে গিয়ে বল লাগে গ্লাভসে। তখনই চোট পান বাঁহাতের অনামিকায়।

পরের ওভারের প্রথম বলেই আউট হয়ে যান। ম্যাচের পর স্ক্যান করানো হয়। ধরা পড়ে আঙুলে চিড়। বিসিবির প্রধান ক্রীড়া চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী এক বিবৃতিতে জানান,  অন্তত তিন সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে চলে গেছেন সাকিব।

শনিবার রাতেই নিউ জিল্যান্ডের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়ার কথা ছিল সাকিবের। নিউ জিল্যান্ডে বাংলাদেশের প্রথম ওয়ানডে আগামী বুধবার। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শেষ ২০ ফেব্রুয়ারি।

এরপর প্রথম টেস্ট ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে, দ্বিতীয়টি ৮ মার্চ থেকে। ১৬ মার্চ থেকে শুরু হতে যাওয়া শেষ টেস্টেই কেবল সাকিবকে পাওয়ার বাস্তব সম্ভাবনা আছে।

আঙুলের চোট সাকিবকে দারুণ ভুগিয়েছে গত বছরও। গত বছরের জানুয়ারিতে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে চোট পেয়েছিলেন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। খেলতে পারেননি দেশের মাটিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজে, ছিলেন না শ্রীলঙ্কায় নিদাহাস ট্রফির প্রথম ভাগেও।

সেই চোটের কারণে ধুঁকেছেন পরে এশিয়া কাপেও। সেপ্টেম্বরে সংযুক্ত আরব আমিরাত এশিয়া কাপ থেকে ফিরতে হয়েছে ফাইনালের আগেই। খেলতে পারেননি অক্টোবরে দেশের মাটিতে জিম্বাবুয়ে সিরিজে। এবার আঙুলের নতুন চোট ছিটকে দিল তাকে।

ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার সঙ্গে শনিবার রাতে নিউ জিল্যান্ডে রওনা হবেন বিপিএলের ফাইনালে খেলা তামিম ইকবাল, মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন ও রুবেল হোসেন।

এর আগে বিপিএলেই খেলার সময় গোড়ালির গাটের চোটে নিউ জিল্যান্ড সফর শেষ হয়ে যায় তাসকিন আহমেদের। তার জায়গায় ওয়ানডে সিরিজে ডাক পান শফিউল ইসলাম ও টেস্ট দলে প্রথমবারের মতো আসেন ইবাদত হোসেন। সাকিবের বিকল্প এখনও ঘোষণা করেনি বিসিবি।