সাভারে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ৩ জন গুলিবিদ্ধ

ইমদাদুল হক : সাভারে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ৩ জন গুলিবিদ্ধর ঘটনা ঘটেছে। তাদেরকে উদ্ধার করে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে ইসমাইল হোসেন নামে এক ব্যক্তি অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে খবর পাওয়া যায়।

বৃহস্পতিবার সকালে সাভার পৌর এলাকা শাহীবাগ মহল্লা এ ঘটনা ঘটে। গুলিবিদ্ধরা হলেন সাভার পৌর এলাকা বাসিন্দা ইউনুছ মিয়ার ছেলে ইসমাইল (২৫), আ: মতিনের ছেলে মিরাজুল ইসলাম অপু (২৫), কাশেম শেখের ছেলে রেজাউল (২৭),। তার তিন জন শাহীবাগ এলাকা বাসিন্দা ইন্টারনেট ব্যবসায়ী পারভেজে কর্মচারী।


জানা গেছে, সাভার পৌর এলাকা শাহীবাগ মহল্লায় ইন্টারনেট ব্যবসায়ী পারভেজের সাথে দীর্ঘদিন যাবত একই এলাকার বাসিন্দা রাসেলের সাথে দ্ব›দ্ধ চলে আসছিলো। এঘটনার সূত্রে ধরে বৃহস্পতিবার সকালে শাহীবাগ এলাকায় শটগানের গুলি ফোঁটানো হয়। এ গুলিতে ওই তিন জন ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ হয় বলে জানা গেছে।

এব্যাপারে ইন্টারনেট ব্যবসায়ী পারভেজ বলেন, আমি দীর্ঘ দিন ধরে সাভার পৌর এলাকা শাহীবাগ মহল্লা ইন্টারনেট ব্যবসা করে আসছি। গত কয়েকদিন ধরে আমার কাছে প্রকাশ্যে ১০ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিলো সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামাল মাদবরের ছেলে স্থানীয় যুবলীগ নেতা রাসেল মাদবর।

পরে সে দাবিকৃত চাঁদার টাকা না দেওয়ায় বৃহস্পতিবার সকালে রাসেলের নেতৃত্বে ৭/৮ জন ব্যক্তি হঠাৎ করে আমার ব্যবসা প্রতিস্টানের সামনে এসে কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে। এরপর আমি গুলির শব্দ পেয়ে ব্যবসা প্রতিষ্টান থেকে বের হয়ে দেখতে পাই রাসেল আমাকে মেরে ফেলার উদ্দেশ্য গুলি করা চেষ্টা করছে। আমি দৌড়ে গিয়ে পালিয়ে জীবন রক্ষ করি। এসময় আমার ব্যবসা প্রতিষ্টানে থাকা তিন জন কর্মচারী রাসেলের শটগানের ছোরা গুলিতে গুলিবিদ্ধ হয় বলে তিনি অভিযোগ করেন।

সাভার মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের প্রস্তুতি চলছে বলে তিনি জানান। এব্যপারে যুবলীগ নেতা রাসেলের সাথে তার ব্যবহিত মোবাইল নাম্বারে কথা বলার চেষ্টা করলে তার নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়। সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্য আব্দুল আউয়াল বলেন তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।