সাভার আশুলিয়া শ্রমিক অসন্তোষ অব্যাহত বিক্ষোভ-ভাঙচুর, পুলিশসহ আহত অর্ধশত

স্টাফ রিপোর্টার : সরকার ঘোষিত মজুরি কাঠামো বাস্তবায়নের দাবি ও শ্রমিক নিহতের ঘটনায় সাভার আশুলিয়ায় পূনরায় বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন গার্মেন্টস শ্রমিকরা।  বুধবার ন্যূনতম মজুরি দাবিতে বিক্ষোভ করে কর্মস্থল ছেড়ে রাস্তায় নামে অর্ধশত পোশাক কারখানার শ্রমিক।শ্রমিকগন পুলিশ সদস্যদের সাথে সংর্ঘষে জড়িয়ে পড়ে। তারা সাভারে ঢাকা আরিচা মহাসড়ক ও সিএন্ডবি আশুলিয়া সড়ক অবরোধ করে।

বুধবার সাভার-আশুলিয়ায় বেশ কয়েকটি স্থানে বিক্ষোভ, ভাঙচুর, মহাসড়ক অবরোধ করে শ্রমিকরা। উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে জেলা প্রশাসন বিজিবি মোতায়েন করেছে। কারখানাগুলোর সামনে পুলিশের জলকামানসহ সাঁজোয়া যান রয়েছে। এছাড়া সাভার আশুলিয়ায় প্রায় ২৫টি কারখানায় সাধারণ ছুটি ঘোষণাসহ হেমায়েতপুরে অবস্থিত স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপ ও ডার্ড লি. নামে দুটি কারখানা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ।

সাভারের উলাইল এলাকায় আন্দোলনরত শ্রমিক সাফিয়া,সুজন,নাজিম উদ্দিন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, নতুন মজুরী কাঠামোতে হেলপারদের বেতন তিন হাজার টাকা বাড়লেও অপারেটরদের বেড়েছে মাত্র এক হাজার টাকা। কারখানার ভিতরে মোবাইল নিতে না দেওয়ায় আমরা অসুস্থ হলে কিংবা কেউ মারা গেলেও আমাদের পরিবার তাৎক্ষনিকভাবে সে খবরটিও পায় না।

শিল্প পুলিশ ও বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নতুন ঘোষিত মজুরী কাঠামোতে বৈষম্য করা হয়েছে, এমন অভিযোগে গত কয়েকদিন ধরেই তা সংশোধনের দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ করে আসছেন বিভিন্ন তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা।

 

তারা সাভারের হেমায়েতপুর, উলাইল,কনর্ পাড়া,আশুলিয়াসহ বেশ কয়েকটি বিক্ষোভ করে পুলিশের সাথে সংর্ঘষে জড়ায়। সাভার ট্যানারি ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক গোলাম নবী বলেন, সকালে থেকে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা মহাসড়ক অবরোধের চেষ্টা করলে আমরা তাদেরকে সরিয়ে দেই।

তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। এছাড়া যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েনের পাশাপাশি জলকামান ও সাজোয়া যানের টহল অব্যাহত রয়েছে। তবে দুপুরে সাভারের পরিস্থিতি শান্ত হয়ে এলেও আশুলিয়ার পরিস্থিতি শান্ত হতে বিকাল হয়ে যায়। শিল্প পুলিশ-১ এর পরিচালক সানা শামিনুর রহমান জানান, কারখানাগুলোতে কাজের পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে মালিকপক্ষের সঙ্গে আলোচনা চলছে।

সমস্যা সমাধানে সরকারের পক্ষ থেকে মজুরী কাঠামোর বিষয়টি পর্যালোচনা করা হচ্ছে। এসময় তিনি সরকারের উপর আস্থা রেখে শ্রমিকদেরকে কাজে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানান।

এক সপ্তাহ ধরে ন্যূনতম মজুরির দাবিতে সাভার,আশুলিয়া,গাজীপুর ও রাজধানীতে বিভিন্ন এলাকায় শ্রমিকদের বিক্ষোভ চলে আসছে। মঙ্গলবার মজুরি নিয়ে অসন্তোষ-বিক্ষোভের মধ্যে সুমন মিয়া নামের এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়। বিক্ষোভরত শ্রমিকেরা গতকাল দাবি করেন, পুলিশের গুলিতে সুমন মারা গেছেন।