ধামরাইয়ে বাবুল হত্যার প্রধান আসামী ইউপি সদস্যর আত্মসমর্পণ

ধামরাই প্রতিনিধি : ধামরাইয়ে শ্রমিক বাবুল হোসেন বাবুর হত্যা মামলার প্রধান আসামী বাইশাকান্দা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আবদুল আজিজ সোমবার গভীর রাতে ধামরাই থানায় আত্মসমর্পণ করেছেন। পরে তাকে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই তৌহিদুল ইসলাম জানান। দীর্ঘদিন পলাতক থেকে সোমবার সে আত্মসমার্পণ করেন। বাকী আসামীদের গ্রেফতার করতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানান ধামরাই থানার অফিসার ইনচার্জ দীপক চন্দ্র সাহা।

বাবুলকে পিটিয়ে হত্যার করার ঘটনায় কয়েকজন জড়িত রয়েছে বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে আবদুল আজিজ। গত বছরের ২২ মে মঙ্গলবার রাতে বাইশাকান্দা ইউনিয়নের বিলবাউটিয়া গ্রামের মৃত জোনাব আলীর ছেলে বাবুকে স্থানীয় কয়েকজন বেদম মারপিট করে মাদক সেবনের অভিযোগ এনে। পরদিন সে মারা যায়। বিষয়টি ধামাচাপা দিতে স্থানীয় মেম্বার আবদুল আজিজসহ কয়েকজন মাতাব্বর মামলাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য বাবু হার্ট এ্যাটাকে মারা গেছে বলে প্রচার করে।

ওই সময় বাবুর স্ত্রী খোদেজা বেগম বাদি হয়ে হত্যা মামলার অভিযোগ দেয়। কিন্তু পুলিশ অপমৃত্যুর মামলা গ্রহণ করে। পরে ময়না তদন্তের রির্পোটে বলা হয়েছে মাথায় আঘাতের কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। এতে নিহতের মা বানু বিবি বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামা ১০/১২ জনকে আসামী করে গত ১২ ডিসেম্বর মামলা দায়ের করেন ধামরাই থানায়।
নিহতের স্বজন ও স্থানীয়রা জানায়, বিষয়টি ধামচাপা দিতে ওই সময় বাবু হার্ট এ্যাটাকে মারা গেছে বলে প্রচার করতে থাকে মারধরকারীরা।

ওই সময় লাশের সুরতহাল রির্পোট করে থানার এস আই জুলফিকার। সুরতহাল রিপোর্ট করার প্রক্কালেই নিহতের পরিবারের সাথে আপোষ মিমাংসার চেষ্টা করে মাতাব্বরা। পরে ঘটনাটি জানাজানি হলে ধামরাই থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই তৌহিদুল ইসলাম ওইদিন সন্ধ্যায় লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।