শিশু আসামির নাম, ঠিকানা, ছবি গণমাধ্যমে প্রকাশ বন্ধে রিট

শিশু আদালতে বিচারাধীন কোনো মামলায় শিশু আসামির নাম, ঠিকানা, ছবিসহ তার পরিচিতি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ বন্ধে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়েছে। রোববার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সৈয়দ সাইয়্যেদুল হক সুমন হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিট আবেদনটি করেন।

শিশু আইন, ২০১৩ এর ২৮ ধারা অনুযায়ী, শিশু অপরাধীর নাম, ঠিকানা, ছবিসহ তার পরিচিতি সংবাদপত্র, ম্যাগাজিনসহ যেকোনো সংবাদ মাধ্যমে প্রচার-প্রকাশ বন্ধের নির্দেশ কেন দেয়া হবে না, মর্মে রুল চাওয়া হয়েছে রিটে।

রিট প্রসঙ্গে আইনজীবী সৈয়দ সাইয়্যেদুল হক সুমন সাংবাদিকদের বলেন, আগামীকাল ‘সোমবার হাইকোর্টের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে রিটটি শুনানির জন্য আসতে পারে।

তিনি বলেন, বিচারব্যবস্থায় শিশু অপরাধীদের নাম, ঠিকানা, ছবি বা পরিচিতি তুলে ধরার বিষয়ে বাধ্যবাধকতা রয়েছে। শিশু আইন, ২০১৩ এর ২৮ ধারা অনুযায়ী ইচ্ছা করলেই কোনো সংবাদ মাধ্যম বা কেউ শিশু অপরাধী বা বিচারের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কোনো শিশুর নাম, ঠিকানা, ছবি, পরিচিতি প্রচার বা প্রকাশ করতে পারবে না। এমন কোনো বর্ণনাও প্রচার-প্রকাশ করা যাবে না, যাতে শিশু অপরাধী বা বিচারের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট শিশুটির পরিচিতি স্পষ্ট হয়ে ওঠে।

রিটকারী আইনজীবী বলেন, কিন্তু গত ৫ নভেম্বর ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টার ‘বয় গেটস টেন ইয়ার্স ফর কিলিং ক্লাসমেটস’ শিরোনামে একটি খবর প্রকাশ করে। সেই খবরে শিশু অপরাধীর পরিচিতি প্রকাশ করা হয়েছে; যা স্পষ্টত শিশু আইন, ২০১৩ এর ২৮ ধারার লঙ্ঘন।

শিশু আইন, ২০১৩ এর ‘শিশু-আদালতের কার্যক্রমের গোপনীয়তা’ শিরোনামে ২৮ ধারায় বলা হয়েছে, (১) ‘শিশু-আদালতে বিচারাধীন কোনো মামলায় জড়িত বা সাক্ষ্য প্রদানকারী কোনো শিশুর ছবি বা এমন কোনো বর্ণনা, সংবাদ বা রিপোর্ট প্রিন্ট বা ইলেকট্রনিক মাধ্যম অথবা ইন্টারনেটে প্রকাশ বা প্রচার করা যাইবে না, যাহা সংশ্লিষ্ট শিশুকে শনাক্তকরণে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে সাহায্য করে।’

(২) উপ-ধারা (১) এ বলা হয়েছে, ‘যাহা কিছুই থাকুক না কেন, শিশুর ছবি, বর্ণনা, সংবাদ বা রিপোর্ট প্রকাশ করা শিশুর স্বার্থের জন্য ক্ষতিকর হইবে না মর্মে শিশু-আদালতের নিকট প্রতীয়মান হইলে ওই আদালত সংশিষ্ট শিশুর ছবি, বর্ণনা, সংবাদ বা রিপোর্ট প্রকাশের অনুমতি প্রদান করিতে পারিবেন।’