কার্তিকে—-খন্দকার জাহাঙ্গীর হুসাইন

ধান মাড়াইয়ের উঠোনজুড়ে প্রজাপতির ভীড়

খোকাখুকি এসব দেখে থাকে না স্থীর।

হাঁস-মোরগের প্রমোদ যেন বাড়ল দ্বিগুণ গুণ

দুধেল গাভী বাছুর খোঁজে; হচ্ছে ডেকে খুন।

পবন মাঝি শ্বাস ছেড়ে কয় কমছে নদীর জল-

উড়ছে দেখো আকাশজুড়ে গাঙ শালিকের দল।

লৌহ পিটায় গণেশ কামার তেঁতুল গাছের তলে

ধার কেটে দেয় কাস্তে, দায়ে নিপুণ হাতের কলে।

অসিত পালের মাটির হাঁড়ি পুড়ছে ধুঁয়ো তুলে

হেমন্তে রোজ কাজ করে সে সকল কিছু ভুলে।

অতুল ঘোষের নাই অবসর দধির বায়না ঢের

মাছে মাছে পূর্ণ দেখি নিমাই জেলের ঘের।

কমছে পানি বিল বাওড়ে মিলছে পাখির মেলা

শাপলা শালুক তুলে তুলে কাটে খুকুর বেলা।

রফিজ মিয়া সবজি ক্ষেতে ভীষণ বিজি থাকে

আঁখ মাড়াইয়ের খোলায় কাশেম ভাগের চাষী ডাকে।