আশুলিয়ায় ডা. জাফরুল্লাহসহ ৬১ জনের বিরুদ্ধে আরে একটি চাঁদাবাজির মামলা

আশুলিয়া ব্যুরো : জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ ৬১ জনের বিরুদ্ধে হামলা, মারধর ও চাঁদাবাজির অভিযোগ এনে আরো একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে আশুলিয়া থানায়। মঙ্গলবার গভীর রাতে দি কটন টেক্সটাইল মিলস লিঃ এর চেয়ারম্যান কাজী মহিবুর রব (৪৮) বাদী হয়ে হয়ে এ মামলাটি (নং-২৪) দায়ের করেন। তিনি এর আগেও দুই কোটি টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগে জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছিলেন। এ নিয়ে মাছ চুরি, ফল চুরিসহ ডা. জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে নানা অভিযোগে এখন পর্যন্ত আশুলিয়া থানায় সাতটি মামলা হয়েছে।

শনিবার ৩ নভেম্বর বিকেল ৩টায় আশুলিয়ার ঘোড়াপীর মাজার সংলগ্ন গণ স্বাস্থ্য পিএইচএ ভবনের মূলগেট অবরোধ করে সংবাদ সম্মেলন করেছিল জমির দাবিদার মোহাম্মদ আলী, আওয়ামীলীগ নেতা নাসির উদ্দিন ও কটন টেক্সটাইল মিলসের পক্ষে রবিউল ইসলাম ও ম্যানেজার ফরহাদ আলম। ওই সংবাদ সম্মেলন শেষে পিএইচএ ভবনের জমি মাপতে যান উল্লেখিতরা। এসময় গণ স্বাস্থ্য ও গণ বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আরিফ ও রাতুল কে তারা বেদম মারধর করে। ঘটনায় উপস্থিত শিক্ষার্থীদের সাথে জমি দখল করতে যাওয়াদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় তাদের ইটপাটকেল নিক্ষেপে কয়েকজন আহত হন। আহদের মধ্যে কয়েকজন কটন টেক্সটাইল মিলস লিঃ এর ম্যানেজার ও লেবার রয়েছে।
এ ঘটনায় কটনের চেয়ারম্যান কাজী মহিবুর রব বাদি হয়ে ডাঃ জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে হুকুমের আসামী, ২১ জনকে এজাহার নামীয়সহ আরো ৪০ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে আশুলিয়া থানায় মামলা করেন।
মামলার অন্যান্য আসামীরা হলো-গণ স্বাস্থ্য কেন্দ্রের বর্তমান ট্রাস্টি ডাঃ নাজিম উদ্দিন (৭০), পরিচালক সাইফুল ইসলাম শিশির (৫৫), আব্দুর রাজ্জাক (৩৫), আব্দুস সালাম (৬০), আওলাদ হোসেন (৪৮), গণ স্বাস্থ্য ফার্মাসিওটিকেলস লিঃ এর প্রশাসনিক কর্মকর্তা রায়হান কবির, সিরাজুল ইসলাম, আবু তাহের, প্রশাসনিক কর্মকর্তা দিলীপ কুমার, ডাঃ আব্দুল কাদের, সন্ধ্যা রানী (৫৪), ডাঃ ইকরাম হোসেন, ঠিকাদার খোকন, গণ বিশ^বিদ্যালয় পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক গোলাম মোর্তুজা, ইঞ্জিনিয়ার অনিল বাবু, শিরিন (৫০), বুলবুলি, মোর্শেদ, ঠিকাদার আব্দুর রহিম ও শাহ আলমসহ অজ্ঞাত আরো ৪০ জন।
বাদি তার এজাহারে আরো উল্লেখ করেন, উল্লেখিতরা সোনি কোম্পানীর এসডি ১৫০০ পি ক্যামেরা যার মূল্য ১ লাখ ৫ হাজার টাকা নিয়ে যায়। এছাড়া কটন টেক্সটাইলের এক্সিকিউটিভ সাকিরুল কবিরকে ধরে রেখে তার নিকট থাকা ভৌত অবকাঠামো উন্নয়নের ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ করেন এজাহারে।
জানতে চাইলে, গণ স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও গণ বিশ^বিদ্যালয় সূত্র জানিয়েছেন, মামলাটি সাজানো এবং বানোয়াট কল্পকাহিনী দিয়ে এজাহার তৈরি। প্রতিষ্ঠানের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা, শিক্ষক, খ্যাতিমান চিকিৎসক, ট্রাস্টি, গবেষক ও একনিষ্ঠ কর্মকর্তা কর্মচারীকে এ মামলায় হয়রানির উদ্দেশ্যে জড়ানো হয়েছে। অথচ প্রতিষ্ঠানের ২ জন মেধাবী ছাত্রকে মারধরের ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দিলেও তাদের মামলা গ্রহণ করেনি থানা পুলিশ। অন্যায় ও অনাচারকারিদের আরো উৎসাহিত করতে এ মামলা নিয়েছে থানা পুলিশ।

মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ রিজাউল হক দীপু বলেন, তদন্ত করে অভিযোগের সত্যতা পেয়েই মামলাগুলো নেওয়া হয়েছে।

চুরি, চাঁদা দাবি ও জমি দখলের চেষ্টার অভিযোগে এর আগে গত ১২, ১৫, ১৯, ২১, ২৩ অক্টোবর ও ২ নভেম্বর জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় ছয়টি মামলা হয়।

সম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশনের টক শোতে বক্তব্য দেওয়াকে কেন্দ্র করে জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হয়।