ইবনে সিনা ফার্মার মুনাফায় বছর শেষে উল্লম্ফন

ফুলকি ডেস্ক : পুঁজিবাজারের ওষুধ ও রসায়ন খাতের তালিকাভুক্ত দ্য ইবনে সিনা ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য ৪০ শতাংশ ডিভিডেন্ড প্রদানের ঘোষণা দিয়েছে। ঘোষিত ডিভিডেন্ডের ৩০ শতাংশ ক্যাশ ও ১০ শতাংশ স্টক। এসময় কোম্পানিটির মুনাফায় ব্যাপক উল্লম্ফন দেখা গেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ডিএসই’র ওয়েবসাইট সূত্রে জানা যায়, তৃতীয় প্রান্তিক শেষে বা মার্চ ২০১৮ শেষে ৯ মাসে কোম্পানিটির কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছিল ২১ কোটি ৭৩ লাখ ৮০ হাজার টাকা ও শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছিল ৭.৬৫ টাকা। কিন্তু বছরান্তে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ১৫.৯২ টাকায় স্থিতি পেয়েছে। অর্থাৎ সর্বশেষ প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে ৮.২৭ টাকা। যা আগের বছরের সমুদয় মুনাফার থেকেও বেশি।

জানা যায়, ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৫.৯২ টাকা। যা আগের বছর একই সময় ছিল ৮.২৩ টাকা।

এছাড়া ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য দাঁড়িয়েছে ৪৩.২১ টাকা। এসময় শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকরী অর্থ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৬.৭৬ টাকা।

ঘোষিত ডিভিডেন্ড বিনিয়োগকারীদের অনুমোদনের জন্য আগামী ২২ নভেম্বর সকাল সাড়ে ৯টায় ইম্মানুলস কনভেনশন সেন্টার, সীমান্ত স্কয়ার, ধানমন্ডিতে বার্ষিক সাধারণ সভার (এজিএম) আয়োজন করা হবে। ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২২ অক্টোবর।

১৯৮৯ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটির অনুমোদিত মূলধন ৫০ কোটি টাকা।

এ’ ক্যাটাগরির অওতাভুক্ত কোম্পানিটির পরিশোধিত মূলধন ২৮ কোটি ৪০ লাখ টাকা।কোম্পানিটির সর্বমোট শেয়ারের ৪৪.৪৭ শতাংশ উদ্যোক্তা পরিচালকদের নিকট রয়েছে। বাদবাকি শেয়ারের ১৫.১৬ শতাংশ প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের নিকট ও ৪০.৩৭ শতাংশ সাধারণ বিনিয়োগকারীদের নিকট রয়েছে।

উল্লেখ্য, ৩০ জুন ২০১৭ সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটি ২৫ শতাংশ ক্যাশ ও ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছিল। মঙ্গলবার (২৫ সেপ্টেম্বর) শেষে কোম্পানিটির সমাপনী শেয়ার দর ছিল ৩১২ টাকায় স্থিতি পেয়েছে।