নিষেধাজ্ঞা তুলে না নিলে ফল ভোগ করতে হবে আমেরিকাকে: চীন

 ফের মুখোমুখি বিশ্বের দুই অন্যতম শক্তিধর দেশ। রাশিয়ার কাছ থেকে যুদ্ধবিমান ও ক্ষেপণাস্ত্র প্রযুক্তি কেনার জন্য চীনের সেনাবাহিনীর উপর নিষেধাজ্ঞা চাপিয়েছে ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন।

শুক্রবার মার্কিন প্রশাসনের সেই সিদ্ধান্তের কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে চীনা পররাষ্ট্র দপ্তর। কার্যত হুঁশিয়ারির সুরে বেজিং জানিয়েছে, ‘ভুল শুধরে’ অবিলম্বে যেন ওই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে নেয় মার্কিন সরকার।

২০১৭ এবং ১৮ সালে রুশ সরকারের কাছ থেকে যথাক্রমে ১০টি এসইউ-৩৫ যুদ্ধবিমান এবং এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র কিনেছিল চীনা সেনাবাহিনীর ইকুইপমেন্ট ডেভেলপমেন্ট ডিপার্টমেন্ট (ইডিডি)।

এ নিয়ে একটি রুশ অস্ত্র সরবরাহকারী সংস্থার সঙ্গে চুক্তি হয়েছিল ইডিডি-র। রাশিয়ার সঙ্গে সেই চুক্তি করার ‘অপরাধেই’ বৃহস্পতিবার ইডিডি এবং তার ডিরেক্টর লি শাংফু-র উপর আর্থিক ও বাণিজ্যিক নিষেধাজ্ঞা জারি করে একটি নির্দেশিকায় সই করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

শুক্রবার সেই সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনা করে চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মুখপাত্র গেং শুয়াং বেজিংয়ে বলেছেন, ‘মার্কিন সরকারের এই সিদ্ধান্তকে ধিক্কার জানাচ্ছে চীন সরকার। আন্তর্জাতিক সম্পর্কের নীতি লঙ্ঘন করেছে এই সিদ্ধান্ত। এবং দুদেশের সম্পর্কেও এর কুপ্রভাব পড়তে চলেছে। আমরা চাই আমেরিকা নিজেদের ত্রুটি সংশোধন করে এই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়। না হলে তার ফল ভোগ করতে হবে।’

বেজিংয়ের এই প্রতিক্রিয়ার পাল্টা জবাব অবশ্য মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর এখনও পর্যন্ত দেয়নি।

যদিও মার্কিন নিষেধাজ্ঞা চীনের সামরিক অস্ত্র কেনার পথে বাধা হবে না বলে জানিয়েছে রুশ সরকার। রুশ পার্লামেন্টের সদস্য ফ্রানজ ক্লিন্টসেভিচের মন্তব্য, ‘ওই যুদ্ধবিমান ও ক্ষেপণাস্ত্র হাতে পাওয়াটা চীনা সেনার পক্ষে খুব জরুরি।’