আশুলিয়ায় পার্কিংকে কেন্দ্র করে লেগুনা চালককে পিটিয়ে হত্যা

আশুলিয়া ব্যুরো: আশুলিয়ায় গাড়ী পার্কিং করাকে কেন্দ্র করে আসলাম পাঠান (৪৫) নামের এক লেগুনা চালককে পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে মেসার্স জুয়েল স্টীল এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং মালিকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনার পর থেকে গ্যারেজ মালিক পলাতক রয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ৯টায় আশুলিয়ার নবীনগর নিরিবিলি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত লেগুনা চালক মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর এলাকার রশিদ পাঠানের ছেলে। সে আশুলিয়ার নিরিবিলি এলাকায় ভাড়া বাসায় থেকে লেগুনা চালাতো।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, আশুলিয়ার নিরিবিলি এলাকার ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের পাশে লেগুনা চালক আসলাম প্রতিদিন তার লেগুনা (ঢাকা মেট্রো-ছ-১১-১০১৯) পার্কিং করে রেখে বাড়িতে চলে যায়। কিন্তু গত শনিবার রাতে নিরিবিলি বাসস্ট্যান্ড এলাকায় মেসার্স জুয়েল স্টীল এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং নামের একটি রডের দোকানের সামনে গাড়ী পার্কি করে রেখে দেয়। এতে করে পরেরদিন সকালে স্টীল দোকানের মালামাল বের করতে সমস্যায় পড়ে।

এদিকে, দুই লেগুনা চালকের খোঁজ করে তাদের না পেয়ে মঙ্গলবার সকালে লেগুনা চালক আসমলামকে ডেকে নিয়ে আসা হয়। পরে এ নিয়ে বাক বিতন্ডার এক পর্যায়ে স্টীল দোকানদার জাকির হোসেন তাকে রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে দোকানের কর্মচারীরা আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের ছোট ভাই সোহেল বলেন, তার ভাই প্রতিদিন রাতে মহাসড়কের পাশে গাড়ী পার্কিং করে বাড়িতে চলে যায়। তবে ওই দিন জায়গার সংকট থাকায় স্টীল দোকানের সামনে গাড়ী রাখলেও ভোরের দিকে সেখান থেকে গাড়ী সড়িয়ে নিয়ে গেছেন। এই তুচ্ছ ঘটনায় তার ভাইকে ডেকে এনে পিটিয়ে হত্যা করে দোকানদার জাকির ও তার সহযোগিরা। তিনি তার ভাই হত্যাকারীদের বিচার দাবী করেন।

পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার সকালে আশুলিয়ার নিরিবিলি এলাকায় লেগুনা পার্কিং করা নিয়ে আসলাম নামের (৪৫) এক লেগুনার ড্রাইভারকে পিটিয়ে হত্যা করেছে জুয়েল স্টীল এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং-এর মালিক জুয়েল ও রুবেল। পরে পুলিশ খবর পেয়ে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। এ ঘটনার পর থেকে হত্যাকারী পলাতক রয়েছে। নিহতের বাড়ি মুন্সিগঞ্জ বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আশুলিয়া থানার ওসি (তদন্ত) জাবেদ মাসুদ বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এছাড়া লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। এ ঘটনায় একটি মামলা দায়ের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি। তবে ঘটনায় জড়িত কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।